‌বিনোদনের প্রতিবেদন:‌ মানুষের মনের মধ্যে যে দ্বন্দ্ব সৃষ্টি হয় তা নিয়ে ছবি করতে ভালবাসেন পরিচালক ইন্দ্রাশিস আচার্য্য। তাঁর আগের দুটি ছবি ‘‌বিলু রাক্ষস’‌ ও ‘‌পিউপা’‌য় এই মানসিক দ্বন্দ্বকেই ফুটিয়ে তুলেছিলেন ইন্দ্রাশিস আচার্যয়। ‘‌পিউপা’‌ প্রদর্শিতও হয়েছিল গত বছর কলকাতা চলচ্চিত্র উৎসবে।
আবার তাঁর নতুন ছবি ‘‌পার্সেল’‌ প্রদর্শিত হবে ২৫তম আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসবের ভারতীয় ভাষার ছবির প্রতিযোগিতায়।
তাঁর এই নতুন ছবিতে এই মানসিক দ্বন্দ্ব তো আছেই। তবে তা এসেছে থ্রিলারের আঙ্গিকে। আর সেখানে মূল ভূমিকা নিয়েছে মানুষের মনের ‘‌ফিয়ার সাইকোসিস’। ছবির গল্পে এক ডাক্তার দম্পতি নন্দিনী আর সৌরভকে নিয়ে। সঙ্গে আছে তাদের ছোট্ট মেয়ে সাজু। হঠাৎ এই নন্দিনীর কাছে আসতে লাগল একটার পর একটা পার্সেল। কিন্তু সেই পার্সেল কে পাঠিয়েছে তা বোঝা যায় না। সেই পার্সেলে থাকে নন্দিনীর পুরনো ও নতুন বিভিন্ন বয়সের ছবি আর ফুলের বোকে। একটা আতঙ্ক সৃষ্টি হয় নন্দিনীর মনে। তবে কি এই পার্সেলে যে পাঠাচ্ছে সে কি তার জীবনের কোনও চাপা পড়া ঘটনা প্রকাশ্যে আনতে চাইছে?‌ এই আতঙ্ক আর উদ্বেগ থেকে চেনাজানা বিভিন্ন মানুষকে সন্দেহ করে তাদের সঙ্গে বচসায় জড়িয়ে পরে নন্দিনী।
অন্য দিকে নার্সিংহোমে এক রোগীর মৃত্যুর ঘটনায় ভিলেন হয়ে ওঠে সৌরভ। তার ওপর আক্রমণও হয়। সেখানেও কাজ করে একটা ফিয়ার সাইকোসিস। এবং দুটো ঘটনা সমান্তরালভাবে এগোতে থাকে। দুজনের জীবনের দুটো ভিন্ন ঘটনা কি একসূত্রে বাঁধা?‌
ছবিতে নন্দিনীর চরিত্রে অভিনয় করেছেন ঋতুপর্ণা সেনগুপ্ত আর সৌরভের চরিত্রে অভিনয় করেছেন শাশ্বত চট্টোপাধ্যায়। সঙ্গে আছেন শ্রীলা মজুমদার, অম্বরীশ ভট্টাচার্য, দামিনী বসু প্রমুখ। ‌‌১০ নভেম্বর অজন্তা সিনেমায় ও ১৪ নভেম্বর নন্দন১-‌এ প্রদর্শিত হবে ইন্দ্রাশিস আচার্য্যর ‘‌পার্সেল’‌।‌

জনপ্রিয়

Back To Top