আজকাল ওয়েবডেস্ক:‌ নিজের বিয়ের আইনি বৈধতা নেই। একথা নিজেই বললেন নুসরত জাহান। কেন,‌ তা অবশ্য বড়সড় প্রেস বিবৃতি দিয়ে জানিয়ে দিয়েছেন। তার সঙ্গে প্রাক্তন ‘‌সহবাস’‌ সঙ্গীর বিরুদ্ধে করেছেন একাধিক অভিযোগ। এমনকী তাঁর টাকা নয়ছয়ের অভিযোগও করেছেন। আর এই প্রসঙ্গে নিখিল জৈন কী বলছেন?‌
তিনি অবশ্য খুব একটা মুখ খুলতে চাননি। বরং বুঝিয়ে দিয়েছেন, আদালতেই এবার সব মীমাংসা হবে। এদিকে নুসরত যে বলছেন, আইনি বিয়েই হয়নি!‌ সেকথাও মেনেও নিখিল বলেছেন, ‘‌যেহেতু ম্যারেজ রেজিস্ট্রেশন হয়নি তাই অ্যানালমেন্টের মাধ্যমে আলাদা হব।’‌ অন্য একটি সংবাদ মাধ্যমে আবার শুভেচ্ছা জানিয়েছেন নুসরতকে। ‘‌ভালো থাকা’‌র পরামর্শ দিয়েছেন। 
নুসরত যদিও এদিন বেশ কোমর বেঁধেই নেমেছেন। তুলে ধরেছেন একের পর এক অভিযোগ, পাল্টা অভিযোগ। নিখিল দাবি করেছিলেন, তাঁর ক্রেডিট কার্ড ব্যবহার করছেন নুসরত। নুসরতের বোন নুজহতের পড়াশোনার খরচও দিয়েছেন নিখিল। নুসরাত সাফ জানিয়েছেন, তিনি বরাবর তাঁর বোনের পড়াশোনার খরচ এবং পরিবারের খরচ একা জুগিয়েছেন। উল্টে তাঁর অভিযোগ, নিখিলই তাঁর অ্যাকাউন্টের টাকা ব্যবহার করেছেন। এমনকী মাঝরাতেও তাঁর ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্ট থেকে টাকার লেনদেন করেছেন। 
অভিনেতার খোঁচা, ‘‌যে মানুষ দাবি করছেন ধনী বলে আমি তাঁকে ব্যবহার করেছি, আমাদের বিচ্ছেদের পরেও তাঁকে কেন লুকিয়ে আমার টাকা ব্যবহার করতে হয়?’‌ নুসরত এও বলেছেন, তাঁর নিজের গয়না, বিয়েতে পাওয়া উপহার সবই নিখিল এবং তাঁর পরিবারের কাছে রয়েছে। তাঁর বেড়ানোর টাকাও অন্য কেউ নয়, তিনি নিজেই বহন করেছেন, সাফ জানালেন। পাশাপাশি এও বললেন, যা কিছু সাফল্য জীবনে পেয়েছেন, নিজের ক্ষমতায়। অন্য কাউকে সেই সাফল্য, নাম–যশে ভাগ বসাতে দেবেন না। নাম না করেও নিখিলকেই যে খোঁচা দিলেন, তা স্পষ্ট। 

জনপ্রিয়

Back To Top