সঙ্কর্ষণ বন্দোপাধ্যায়: ১৯৯৯ এর ৭ আগস্ট কলকাতা শহরের কলেজস্ট্রিট গোলদিঘির পাশে স্টুডেন্টস হলে কালিকাপ্রসাদ ভট্টাচার্যের নেতৃত্বে একটা ছোট্ট ঘরোয়া আসরে জন্ম নিয়েছিল দোহার। সঙ্গী ছিলেন রাজীব। উদ্দেশ্য ছিলো কালিকপ্রসাদের এক কাকা অনন্ত ভট্টাচার্যকে তাঁরই সংগৃহীত গানের ডালি দিয়ে শ্রদ্ধাজ্ঞাপন। যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক অভীক মজুমদার দিয়েছিলেন ‘‌দোহার’‌ নামটি। স্টুডেন্টস হলের ছোট্ট মঞ্চে কালিকা-রাজীব ছাড়া সেদিন ছিলেন নিরঞ্জন, যোগেন ঢাকি, বাবলু, সেবায়ন ও সুদর্শন। সেদিন একের পর এক ভাটিয়ালি, জারি, সারি, গাজন, মনসা মঙ্গল, ধামাইল ইত্যাদি পূর্ববঙ্গের শ্রীহট্ট অঞ্চলের গানে মাত করে দিয়েছিলো দোহার। বন্ধু- বান্ধবের উস্কানিতে শিশির মঞ্চে আয়োজন করা হলো দোহারের প্রথম একক অনুষ্ঠান। একে একে নানা ওঠা-পড়া, আলো-আঁধার, সুখ-দুঃখের মাঝে কেটে গেছে কুড়িটা বছর। সেই দোহার আজ একটি মঞ্চসফল লোকগানের দল। দেশবিদেশে অবিভক্ত বাংলার লোকসংস্কৃতির প্রদর্শনের পাশাপাশি নানা লোকশিল্প ও শিল্পীকে সর্বসমক্ষে তুলে আনা অথবা নতুন প্রজন্মকে হাতেকলমে তার শিকড়ের সাথে পরিচয় ঘটানো —এ’‌সবই দোহারের কর্মকান্ডের অন্তর্ভুক্ত। আজ দোহারের প্রাণ পুরুষ কালিকাপ্রসাদ নেই। কিন্তু থেমে নেই তাঁর স্বপ্ন সফর। এবার কালিকাপ্রসাদকে নিয়ে ওয়েব সিরিজ, ‘প্রসাদ কহে কথায় গানে কালিকাপ্রসাদ’। উদ্যোগী, তাঁরই নিজে হাতে গড়া ‘দোহার’-এর সহযোদ্ধারা।‘দোহার কুড়ি’ উপলক্ষে তাই বছরভর নানা অনুষ্ঠানের পরিকল্পনা করেছেন ঋতচেতা, রাজীবরা। তারই সূচনা হল ওয়েব সিরিজটির স্ট্রিমিং দিয়ে। কালিকাপ্রসাদের জন্মদিনেই মুক্তি পেল ‘প্রসাদ কহে কথায় গানে কালিকাপ্রসাদ’। আগামী দু’মাস, প্রতি বুধবার বিকেল ৫টায় দোহার উপস্থাপিত করবে এই সিরিজের এক একটি নতুন পর্ব। দেখা যাবে দোহারের ইউটিউব চ্যানেলে। ‘আসলে এটি একটি মঞ্চ অনুষ্ঠান। কালিকাপ্রসাদেরই মুখের কথা, গান, অভিজ্ঞতার কাহিনী নিয়ে তৈরি ওয়েব সিরিজটি,’ বললেন ঋতচেতা। এছাড়াও রবীন্দ্রসদনে অনুষ্ঠিত হল  বর্ণাঢ্য গানের আসর ‘বহুসুর বহুস্বর’। এই অনুষ্ঠানে দোহারের নতুন পুরনো শিল্পীদের গানের সঙ্গে অংশ নিলেন বাংলার যন্ত্রশিল্পীরাও।গানে গানে মাতালেন উত্তরবঙ্গের বিশিষ্ট লোক সঙ্গীত শিল্পী আয়েষা সরকার, ভাওয়াইয়া গানের গবেষক ও শিল্পী অধ্যাপক জয়ন্ত বর্মন এবং কর্মশালায় অংশগ্রহণকারী শিল্পীরা। পি সি চন্দ্রের পৃষ্ঠপোষকতায় দোহারের কর্মশালা এবার চতুর্থ বছরে পড়ল। বছরে দু’বার আয়োজিত হয় এই কর্মশালা।পি সি চন্দ্র গার্ডেনে অনুষ্ঠিত কর্মশালায় এবারের বিষয়  ‘ভাওয়াইয়া’ সঙ্গীত। আলোচনা করলেন শিল্পী আয়েষা সরকার ও অধ্যাপক জয়ন্ত বর্মণ। ‘দোহার কুড়ি’র বছরভর উৎসবের ‘সহযোগী বন্ধু’ পি সি চন্দ্র গ্রুপ।

জনপ্রিয়

Back To Top