আজকাল ওয়েবডেস্ক:‌ অজস্র মহিলার স্বপ্নের পুরুষ তিনি। অসংখ্য অ্যাডভেঞ্চারপ্রেমী তরুণের ‘‌আইকন’‌। সেই জেমস বন্ড–কে কী না শুনতে হচ্ছে ভর্ৎসনা। সম্প্রতি জনপ্রিয় ডিজিটাল মিডিয়া ‘‌নেটফ্লিক্স’‌–এ প্রকাশিত হয়েছে জেমস বন্ড সিরিজের সবকটি সিনেমা।

যাঁরা আগে কখনও জেমস বন্ডের সিনেমা দেখেননি, তাঁদের কাছে বন্ডের ভাবমূর্তি কী রকম?‌ সেটা জানতেই করা হয়েছিল একটি সমীক্ষা। বন্ডের ২৬টি ছবি দেখার পরে ৫৭ শতাংশ দর্শক মত দিয়েছেন জেমস বন্ড ঘৃণ্য একটি চরিত্র। এক দর্শকের কথায়, ‘‌নিজের স্বার্থসিদ্ধির জন্য বন্ড সকলকে ব্যবহার করতেন।

মহিলার সঙ্গে প্রেমের ভাণ করে তাদেরও কাজে লাগাতেন। উনি একজন দুশ্চরিত্র। কথার জালে ফাঁসিয়ে মহিলাদের বিছানায় নিয়ে যেতেন। যা ধর্ষণের চেয়ে কম কিছু নয়। তাছাড়া কৃষ্ণাঙ্গদের সঙ্গে জেমসের ব্যবহার অত্যন্ত অপমানজনক।’‌ ১৯৬২ থেকে ১৯৮২ সালের বন্ডের সিনেমাগুলিতে প্রধান চরিত্রে দেখা গিয়েছিল শন কোনরিকে।

সেই বন্ড সম্পর্কে দর্শকদের মূল্যায়ন ‘‌লিঙ্গবৈষম্যকারী এবং সমকামীদের ঘৃণাকারী।’‌ আর এক বন্ড, রজার মুর সম্পর্কে দর্শকদের মতামত, ‘‌জাতিবিদ্বেষে ভরা একটি চরিত্র।’‌ ড্যানিয়েল ক্রেগের সম্পর্কে বিশ্লেষণ, ‌‘‌প্রচারপ্রিয়’‌।

জনপ্রিয়

Back To Top