অলোকপ্রসাদ চট্টোপাধ্যায়: ষষ্ঠীর সন্ধ্যায় ‘‌মিতিন মাসি’‌ চললেন ভবানীপুরের মল্লিক বাড়িতে। বৃহস্পতিবার দুপুরে যখন কথা হল, কোয়েল মল্লিক বলে দিলেন আজ সন্ধে থেকে ফোন বন্ধ রাখব। পুজোর চারদিন কেজো কথাবার্তা বন্ধ। ষষ্ঠীর সন্ধ্যে থেকে আমি ভবানীপুরের মল্লিক বাড়ির মেয়ে। ‘‌‌মিতিন মাসি’ নই।
কিন্তু এই নারী ডিটেকটিভ এবং পর্দায় মিতিন মাসির অ্যাকশন নিয়ে তো দর্শকরা বেশ উচ্ছ্বসিত। এই কথা শুনে কোয়েল অবশ্য উচ্ছ্বাস চেপে রাখলেন না। ‘‌সত্যি‌ আমি অভিভূত দর্শকদের রিঅ্যাকশন দেখে। আমাদের বাড়ির পুজোয় মেতে থাকলেও চোখ কান খোলা রাখছি।’‌ স্বতস্ফূর্ত কোয়েলের গলা।
পুজোয় এবার ‘‌মিতিন মাসি’ যেমন এসেছে, এসেছেন নেতাজি, ‘‌গুমনামী’‌ ছবিতে। এসেছে নতুন ব্যোমকেশ, আর সাইবার ক্রাইমের মত নতুন বিষয়কে কেন্দ্র করে ‘‌পাসওয়ার্ড’‌।
পুজোয় যখন চার-‌চারটে নতুন ছবি নিয়ে কেমন যুদ্ধ হবে, তার আলোচনা চলছিল, তখন ঋত্বিক রোশন, টাইগার শ্রফের ‘‌ওয়ার’‌ মুক্তির ঘোষণা পরিস্থিতিটা ঘোলাটে করে দেয়। বাংলা ছবি নিয়ে লড়াইটা আমরা বুঝে নেব, কিন্তু বাঙালির‌ শ্রেষ্ঠ উৎসবের দিনে বিগ বাজেটের হিন্দি ছবি কেন অধিকাংশ শো দখল করে নেবে?‌ প্রশ্ন তুলোছিলেন প্রসেনজিৎ। টুইট করেন দেব। দেবের টুইট নজরে পড়ে মুখ্যমন্ত্রীর। তাঁর হস্তক্ষেপে চারটি বাংলা ছবির জন্যেই যথেষ্ট শো বরাদ্দ করতে বাধ্য হয়েছে মাল্টিপ্লেক্স গুলো।
ফলে পুজোর ছবি মুক্তির আগেই স্বস্তি পেয়েছেন চার বাংলা ছবির নির্মাতারা। পুজোর সব ছবিই মুক্তি পেল শুক্রবার নয়, দুদিন আগেই, বুধবার, ২ অক্টোবর, গান্ধীজির জন্মদিনে।
গান্ধীজির জন্মদিনে মুক্তি পাওয়ার জন্যে নয়, এমনিতেই নেতাজিকে নিয়ে তৈরি সৃজিত মুখোপাধ্যায়ের ‘‌গুমনামী’‌ বেশ কিছুদিন ধরেই বিতর্কের কেন্দ্রে। এই বিতর্ক বেড়েছে বসু পরিবারের মতামতে, ফরওয়ার্ড ব্লকের বক্তব্যেও। এই বিতর্ক হয়ত ‘‌গুমনামী’‌ সম্পর্কে আগ্রহ কিছুটা বেশিই বাড়িয়েছে। প্রসেনজিৎ-‌সৃজিত জুটির ছবি বরাবরই আকর্ষণ করে এসেছে দর্শকদের। ‘‌গুমনামী’‌র কেন্দ্রে যেহেতু নেতাজি, তাই প্রেক্ষাগৃহে সেই আগ্রহের ছাপ একটু বেশেই পড়ছে। মুক্তি প্রাপ্ত চারটি বাংলা ছবির মধ্যে তাই একটু হলেও বক্স অফিসে আপাতত এগিয়ে ‘‌গুমনামী’‌। কলকাতার ‘‌নবীনা’, ‘‌বসুশ্রী’‌, ‘‌বিজলী’‌ ইত্যাদি সিনেমা হলের কর্তৃপক্ষ সেরকমি জানাচ্ছেন।‌
‘‌গুমনামী’‌র সঙ্গে যথেষ্ট ভাল লড়াই চলছে কমলেশ্বর মুখোপাধ্যায় পরিচালিত এবং দেব প্রযোজিত ‘‌পাসওয়ার্ড’-‌এর। এ ছবির বিষয় খুবই আধুনিক। সাইবার ক্রাইম নিয়ে এই ছবি করার সাহস দেখালেন দেব। তিনি বললেন, নতুন বিষয় নিয়ে ছবি করার সাহস না দেখালে বাংলা ছবি এগোবে কীভাবে?‌
অরিন্দম শীল গোয়েন্দা-‌ছবির বিশারদ পরিচালক হয়ে উঠেছেন। ব্যোমকেশ, শবরের পর এবারও তাঁর ছবির কেন্দ্রে গোয়েন্দা থাকলেও, এই প্রথম বাংলা ছবিতে এমন দাপুটে এক নারী গোয়েন্দাকে নিয়ে এলেন তিনি। সুচিত্রা ভট্টাচার্য সৃষ্ট এই ‘‌মিতিন মাসি’‌ চরিত্রে কোয়েল মল্লিকও অন্যভাবে নিজেকে হাজির করলেন পর্দায়। অরিন্দম-‌কোয়েল জুটি এবার নতুন ফ্র‌্যাঞ্চাইজি-‌র জন্ম দিলেন। দর্শকরাও পুজোর দিনে যথেষ্ট আগ্রহ দেখালেন নারী গোয়েন্দাকে নিয়ে।
ব্যোমকেশকে নতুন করে বাংলা ছবিতে নিয়ে এসে প্রতিষ্ঠিত করেন অঞ্জন দত্ত। আবির ওবং যিশু—দুই ব্যোমকেশই তাঁর অবদান। এবার পরমব্রতকে ব্যোমকেশ হিসেবে নিয়ে এলেন অঞ্জন দত্ত। ‘‌সত্যান্বেষী ব্যোমকেশ’‌-‌এ অবশ্য তিনি সৃজনশীল পরিচালক। পরিচালনার দায়িত্ব পালন করেছেন সায়ন্তন ঘোষাল। এছবিতে অজিতও নতুন—রুদ্রনীল ঘোষ। নতুন ব্যোমকেশ-‌অজিত জুটিকে ঘিরে তাই দর্শকের আগ্রহ কম নয়।
কলকাতার ‘‌বসুশ্রী’‌ প্রেক্ষাগৃহে চলছে তিনটি বাংলা ছবি, ‘‌গুমনামী’‌, ‘‌পাসওয়ার্ড’‌, ‘‌সত্যান্বেষী ব্যোমকেশ’‌। সঙ্গে আছে অমিতাভ বচ্চন ও চিরঞ্জিবীর দক্ষিণী ছবি ‘‌সিয়েরা নরসিংহ রেড্ডি’‌। অন্যদিকে নতুন চার বাংলা ছবি চালিয়ে বেশ গর্বিত ‘‌বিজলী’‌ সিনেমার কর্মকর্তা সুরঞ্জন পাল। তিনি বললেন, আমরা সব সময় বাংলা ছবির সঙ্গে আছি।
একদিকে ‘‌ওয়ার’‌, অন্যদিকে অমিতাভ বচ্চন, চলে এসেছে ভেনিসে সেরা ছবির পুরস্কার ‘‌গোল্ডেন লায়ন’‌ পাওয়া ‘‌জোকার’‌, তবুও কলকাতার হল মালিকরা বলছেন, নতুন বাংলা ছবি ঘিরে দর্শকদের আগ্রহ যথেষ্ট। সপ্তমী (‌‌আজ) থেকে বাংলা ছবি দেখতে লোকজন উপচে পড়বে বলেই আশা ‘‌বিজলী’‌র ম্যানেজার সৌমেন গাঙ্গুলির।
বাঙালির শ্রেষ্ঠ উৎসবে এর চেয়ে বড় আশা আর কী হতে পারে বাংলা ছবির জন্যে?‌ জয় হোক বাংলা ছবির। আরও জমজমাট হোক ছবির উৎসব।‌

জনপ্রিয়

Back To Top