Sri Aurobindo: শ্রী অরবিন্দর জীবনী নিয়ে তৈরি হল ডকুমেন্টারি ফিল্ম 'দ্য ট্রান্সফরমেশন', দেখানো হবে স্বাধীনতা দিবসে

আজকাল ওয়েবডেস্ক: 'দ্য ট্রান্সফরমেশন', হিন্দিতে 'নয়া জন্ম'। শ্রী অরবিন্দর ১৫০তম জন্ম বার্ষিকী উপলক্ষে তাঁকে নিয়ে একটি ডকুমেন্টারি ফিল্ম তৈরি হয়েছে। ৫৪ মিনিটের এই ফিল্মের নির্দেশক বাংলার টেলিভিশন জগতের প্রখ্যাত নাম অভিজিৎ দাশগুপ্ত। ১৫ আগস্ট ভারতের ৭৫তম স্বাধীনতা দিবসের পাশাপাশি শ্রী অরবিন্দর দেড়শোতম জন্ম বার্ষিকী। সেই উপলক্ষেই এই ডকুমেন্টারি। পুদুচেরির শ্রী অরবিন্দ সোসাইটি এবং কলকাতা সুকৃতি ফাউন্ডেশনের যৌথ প্রয়াসে তৈরি এই ফিল্ম। এই ডকুমেন্টারিতে শ্রী অরবিন্দর সংগ্রাম দেখানো হয়েছে। মূলত ১৯০৮ থেকে ১৯০৯ সালের যে সময়টা তিনি আলিপুর জেলে ছিলেন, সেটা পর্দায় তুলে ধরা হয়েছে। শুটিং হয়েছে প্রেসিডেন্সি জেলে। এছাড়াও বিহারের মুজাফফরপুর এবং পুদুচেরির শ্রী অরবিন্দ আশ্রমে ডকুমেন্টারির শুটিং হয়েছে। এক মাসের একটু বেশি সময় ধরে চলে শুটিং। সশস্ত্র বিপ্লবে বিশ্বাসী ছিলেন শ্রী অরবিন্দ। দূরদর্শিতা এবং জ্ঞানের পরিধি অসীম ছিল।

ব্রিটিশরা তাঁকে 'মাস্টারমাইন্ড' বলত। 

সোমবার এই তথ্যচিত্র নিয়ে কলকাতা প্রেস ক্লাবে সাংবাদিক সম্মেলন ছিল। উপস্থিত ছিলেন অভিজিৎ দাশগুপ্ত, অশোক বিশ্বনাথন, পণ্ডিত তেজেন্দ্র নারায়ণ মজুমদার এবং অলকানন্দা রায়। এছাড়াও ছিলেন ডকুমেন্টারির বিভিন্ন কলা কুশলীরা। ফিল্মের একাংশ দেখানোও হয়। নিজের অভিজ্ঞতা ভাগ করে নেন নির্দেশক। অভিজিৎ দাশগুপ্ত বলেন, 'এই ডকুমেন্টারি নির্মাণ করা খুবই চ্যালেঞ্জিং ছিল। কারণ প্রধান চরিত্রের কোনও ছবি দেখানো যায়নি। কলকাতার জেলে শুটিংয়ের অনুমতি থাকা সত্ত্বেও পাঁচ মিনিটের বেশি শুট করতে দেওয়া হয়নি। তারওপর বইয়ে যে সেল দেখানো হয়েছিল, এখানে আদতে সেটা ছিল না। তাই ডিজিটালি তৈরি করতে হয়।' স্বাধীনতা সংগ্রামীর জীবনকাহিনি কতটা আকৃষ্ট করবে তরুণ প্রজন্মকে? অভিজিৎ দাশগুপ্ত বলেন, 'নিজের দেশের ইতিহাস, মহাপুরুষদের সম্বন্ধে জানার আগ্রহ না থাকলে সেটা লজ্জার বিষয়।' ১৪ এবং ১৫ আগস্ট দূরদর্শনে হিন্দি এবং ইংরেজিতে এই ডকুমেন্টারি ফিল্ম দেখানো হবে। ১১ আগস্ট সন্ধে ৬টায় নন্দন থ্রিতে বিশেষ স্ক্রিনিং হবে।

আকর্ষণীয় খবর