বিনোদনের প্রতিবেদন‌: সুমন ঘোষের ‘‌বসু পরিবার’‌-‌এর পর আবার জুটি বাঁধলেন সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায় ও অপর্ণা সেন। ছবির নাম ‘‌বহমান’‌। পরিচালনায় অনুমিতা দাশগুপ্ত। অনুমিতা দাশগুপ্তর শুরুটা হয়েছিল সরকারি কিছু তথ্যচিত্র পরিচালনার মধ্যে দিয়ে। এছাড়াও ডাল লেক নিয়েও একটা তথ্যচিত্র করেছেন। এটা তাঁর দ্বিতীয় পূর্ণদৈর্ঘ্যের কাহিনী চিত্র। 
এর আগে অনুমিতা পরিচালনা করেছিলেন পূর্ণদৈর্ঘ্যের কাহিনীচিত্র ‘‌জুমেলি’‌। বললেন, ‘‌এক আদিবাসী মেয়েকে নিয়ে এর গল্প। এটা ২০১৩ সালে মুক্তি পায়। এটা কেরালার ত্রিবান্দ্রম থেকে অরবিন্দন পুরস্কারম পায়। আদুর গোপালকৃষ্ণানের হাত থেকে এই ছবির জন্য পুরষ্কার নিই আমি। তার জন্যে আমি গর্বিত। এই কম্পিটিশনে আমির খানের ‘‌ধোবিঘাট’‌ ছবিটাও ছিল। এই ছবিতেও সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায় অভিনয় করেছিলেন। আর ছিলেন সোহাগ সেন, শাশ্বতী গুহঠাকুরতা, শঙ্কর দেবনাথ ও সাধনা।’‌
কিন্তু হঠাৎ সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায় ও অপর্ণা সেনকে নিয়ে ছবি তৈরির ভাবনা কেন?‌ অনুমিতা জানালেন, ‘‌বেশ কিছুদিন ধরেই এই ছবির চিত্রনাট্য লিখছিলাম। তবে তখন থেকেই আমার মাথায় ছিল সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায় আর অপর্ণা সেনের কথা। আসলে সেই স্কুল লাইফে ‘‌সমাপ্তি’‌ ছবিটা দেখেছি। তখন থেকেই মনে হয়েছিল এই জুটিকে দিয়ে যদি একটা অন্যরকম প্রেমের ছবি করা যায়। কিন্তু ভয়ও ছিল, দুজনকে একসঙ্গে পাওয়া যাবে কি না। সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায় তো এর আগেও আমার ছবিতে অভিনয় করেছেন। তাঁকেই বললাম এই ছবিতে জুটি হিসেবে আমি অপর্ণা সেনকেও চাই।’‌
এই ছবির গল্প কীরকম?‌ অনুমিতা জানালেন, ‘‌দুজন বয়স্ক পুরুষ ও মহিলার গল্প। ৫০ বছর আগে তাঁদের হারিয়ে যাওয়া প্রেমকে ৫০ বছর পরে খুঁজে পায়। তাঁদের মনে হয় আমরা কেন এখন একসাথে চলতে পারি না। কিন্তু তাতে বাধ সাধে তার ছেলে। অথচ পুত্রবধূ তাঁদের খুব সাপোর্ট করে।’‌
ছবিতে সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায় অভিনয় করেছেন সেলিম খানের ভূমিকায় আর অপর্ণা সেন অভিনয় করেছেন মাধুরীর চরিত্রে। ব্রাত্য বসু অভিনয় করেছেন মাধুরীর ছেলে সুব্রতর চরিত্রে আর অর্পিতা হয়েছেন সুব্রতর স্ত্রী জয়িতা।
অপর্ণা সেন জানালেন, ‘‌এখন বেশি অভিনয় করতে চাই না আমি। কারণ আমার আসল ফোকাস পরিচালনা। ক্রমাগত অভিনয় করলে সেই ফোকাস নষ্ট হওয়ার আশঙ্কা থাকে। কিন্তু অনুমিতা গিয়ে সৌমিত্রকে ধরল। ফলে রাজি না হয়ে আর উপায় থাকল না। ওই যে, সৌমিত্রর সঙ্গে আবার অভিনয়ের লোভ!‌’‌ জানালেন, ‘‌পারমিতার একদিন ছবিতে সৌমিত্রকে পরিচালনা করেছিলাম। আর একবার ইচ্ছা আছে সৌমিত্রকে নিয়ে ছবি পরিচালনা করার। দেখা যাক, কী হয়।’‌
আর অর্পিতা জানালেন, ‘‌ব্রাত্য বসু আর অপর্ণা সেনের সঙ্গে কাজ করার দারুণ অভিজ্ঞতা। পরিচালক অনুমিতার সঙ্গে কাজ করার অভিজ্ঞতাও বেশ ভাল। ভীষণ ওপেন মাইন্ডেড। উনি কি পারেন তা বেশ ভালমতোই জানেন। যখন কোনও জটিলতা এসেছে তখন সবার সঙ্গে পরামর্শ করেই এগিয়েছেন। টিমটা দারুণ সেট করেছেন বিহাইন্ড দ্য ক্যামেরা।’‌ জানালেন, ‘‌ব্রাত্যদা অ্যাজ এ থিয়েটার পার্সন আমার খুব পরিচিত। ওঁর পরিচালনা দেখেছি, অভিনয় দেখেছি। তবে আমাদের মধ্যে কথা বিশেষ হত না। বেশিরভাগই মেসেজ ডেলিভারি হত। ওঁকে দেখে অ্যাপারেন্টলি খুব কঠিন একটা মানুষ বলে মনে হয়। আমারও খুব ভয় লেগেছিল। কিন্তু কাজ করার সূত্রে দেখলাম মানুষটা একেবারেই ওইরকম নয়। ভীষণ স্পষ্টবক্তা। আমার খুব পছন্দ হয়েছে এরকম একজন সহ অভিনেতাকে পেয়ে।’‌ অনুমিতা দাশগুপ্ত পরিচালিত এই ছবি মুক্তি পাবে আগামী সপ্তাহে। ‌‌

‘‌বসু পরিবার’‌-‌এর পর আবার জুটি সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায় ও অপর্ণা সেন। অনুমিতা দাশগুপ্তর ‘‌বহমান’‌ ছবিতে। গুরুত্বপূর্ণ চরিত্রে ব্রাত্য বসু ও অর্পিতা চট্টোপাধ্যায়। ছবির মুক্তি ২৯ নভেম্বর।

জনপ্রিয়

Back To Top