সৌগত চক্রবর্তী: ‘‌কাকাবাবুর প্রত্যাবর্তন’‌ ছবির একটি অংশের শুটিং সেরে দক্ষিণ আফ্রিকা থেকে ফিরলেন প্রসেনজিৎ ও পরিচালক সৃজিত মুখোপাধ্যায়। বৃহস্পতিবার সকাল ৮টায় জোহানেসবার্গ থেকে দুবাই হয়ে কলকাতায় ফেরেন দুই তারকা। ফিরেই এই দুই তারকা চলে যান হোম কোয়ারেন্টিনে।
বিমানে ছিলেন ২৩৫ জন যাত্রী। এর মধ্যে ৩৫ জন যাত্রীকে করোনা সন্দেহে আলাদা বাসে রাজারহাট কোয়ারেন্টিনে পাঠিয়ে দেওয়া হয়। এঁরা মূলত বিদেশি অতিথি। বাকিদের থার্মো স্ক্যান করেই ছেড়ে দেওয়া হয়। তাঁরা এখন বাড়িতেই থাকবেন।
প্রসেনজিৎ জানালেন, শুটিং দলের সবাই সুস্থ আছেন এবং ফিরে এসেছেন। কিন্তু সামনের দিনগুলোতে আমাদের আরও বেশি সতর্ক থাকতে হবে। সে কারণেই আমি বাড়িতে প্রায় ৮ থেকে ১০ দিন সেল্ফ কোয়ারেন্টিনে থাকব। বাড়িতে বলে সেরকমই ব্যবস্থা করে রেখেছি। আমার ছেলেও লন্ডন থেকে ফিরেছে। তবে ওর সঙ্গে আমার দেখা হয়নি। বললেন, আমাদের সবারই এখন নিজের স্বার্থে সমাজের স্বার্থে কিছু নিয়ম মানা দরকার। তবেই আমরা করোনার বিরুদ্ধে লড়তে পারব। আমি সেই নিয়মই মেনে চলার চেষ্টা করছি। সবাই নিয়ম মেনে চলুন।
আর সৃজিত মুখোপাধ্যায় জানালেন, পরিকল্পনা অনুযায়ী আমরা শুটিং সেরে একদিন আগেই ফিরে এসেছি। জোহানেসবার্গে যেদিন জাতীয় বিপর্যয় ঘোষণা করা হয় আমরা সেদিনই ফিরে এসেছি। ফলে আমাদের কোনও ক্ষতির মুখে পড়তে হয়নি। তবে এবার আমি ৮ থেকে ১০ দিন সেল্ফ কোয়ারেন্টিনে নিজের বাড়িতেই থাকব।
অন্যদিকে বুধবার সকালে লন্ডন থেকে শুটিং সেরে কলকাতায় ফিরেছেন মিমি। বলেছিলেন, সেল্ফ কোয়ারেন্টিনে থাকবেন। সেভাবেই নিজের বাড়িতে একা একটা ঘরে ১৪ দিন কাটাবেন মিমি। জানিয়েছেন, বাবা, এমনকি পোষ্য কুকুর দুটিকেও কাছে ঘেঁষতে দিচ্ছেন না মিমি। যাচ্ছেন না কিচেনেও। খাচ্ছেন ডিসপোজেবল থালায়। স্বাস্থ্য সম্পর্কে বরাবরই খুঁতখুঁতে মিমি। যেদিন লন্ডনে শুটিং করতে যান সেদিন মাস্ক পরে সমস্ত সতর্কতা অবলম্বন করেই গিয়েছিলেন। জানালেন, প্লেনে ওঠার পর স্যানিটাইজার দিয়ে বারবার সব কিছু মুছেছেন। এমনকি বিমানে যতবার ওয়াশ রুমে গেছেন ততবারই আগে ওয়াশরুমের দরজা থেকে হ্যান্ডশাওয়ারের নব সবকিছুই মুছেছেন। মুছেছেন নিজের সিট, কম্বল, আইপ্যাড, বিছানা আর সামনের স্ক্রিন। তবে দুবাই বিমানবন্দর বেশ ফাঁকা থাকলেও লন্ডনে মাস্ক ছাড়াই সবাইকে ঘুরতে বা আনন্দ করতে দেখেছেন। জানালেন, কলকাতা বিমানবন্দরে ফিরে যখন মেডিক্যাল পরীক্ষার সামনে দাঁড়িয়েছিলাম, তখন সত্যিই একটু ভয় ভয় করছিল। তবে শেষ পর্যন্ত আমি পরীক্ষায় পাশ করেছি। এখন একটা ঘরে একা নিজের মতো করে ১৪ দিন কাটাব। জানালেন, এটাও একটা লড়াই।

বাড়িতে সৃজিত মুখোপাধ্যায়

জনপ্রিয়

Back To Top