সৌগত চক্রবর্তী: ‌• এই ছবিতে আপনার অভিনীত চরিত্রটা কীরকম?‌
•• আমার চরিত্রের নাম লাবণ্য। একটা সময়ে নীলের সঙ্গে তার প্রেম করেই বিয়ে হয়। বিয়ের আগে তার অনেক আশা আর স্বপ্ন ছিল। কিন্তু বিয়ের পর তার যে কল্পনা ছিল সেটা আর হল না। বরং অনেক দায়িত্ব বেড়ে গেল। টাকা পয়সায় টান পড়ল। গাড়ির লোন, বাড়ির লোনের ই এন আই দিতে দিতে স্বামী-‌স্ত্রীর সম্পর্কটাই শেষ হয়ে যেতে বসল। শুধু ঝগড়া, অ্যাডজাস্টমেন্ট আর সমস্যা। আসলে এই ছবিটা কিন্তু টিপিক্যাল কমার্শিয়াল ছবি নয়। কিন্তু একটা সেমি আর্বান ছবি। নতুন প্রজন্মের সমস্যা উঠে এসেছে এই ছবিতে। লাবণ্য একটু ইমোশনাল কিন্তু দায়িত্বশীল।
• এই চরিত্রের জন্য কীভাবে নিজেকে তৈরি করেছেন?‌
•• সত্যি কথা বলতে কী, এই চরিত্রের জন্যে আলাদা করে কোনও প্রস্তুতি আমাকে নিতে হয়নি। কারণ, লাবণ্য আর আমার মধ্যে মিলটাই বেশি। লাবণ্য এই ছবিতে ঠিক যেভাবে রিঅ্যাক্ট করছে আমিও ঠিক সেরকমভাবেই বাস্তব জীবনে রিঅ্যাক্ট করি।
• এই ছবিতে আপনার সহ অভিনেতা সোহম। কেমন লাগল সোহমের সঙ্গে অভিনয় করে?‌
•• অভিনেতা হিসেবে সোহমের বেশ ভাল। আর অভিনয়ের ব্যাপারে চূড়ান্ত প্রফেশনাল। অনেকদিন আগে ওর সঙ্গে একটা ছবিতে অভিনয় করেছিলাম। আদিবাসী স্বামী ও স্ত্রী। সেখানে আমরা আদিবাসী ভাষাতেই ঝগড়া করেছিলাম। এখানে সেই ঝগড়াটাই বাংলায় করেছি। সোহমের সঙ্গে অভিনয় করাটা খুব সুন্দর অভিজ্ঞতা।
• ছবির নাম ‘‌১৭ সেপ্টেম্বর’ কেন?‌
•• সেটা তো ছবিটা না দেখলে বোঝা যাবে না। আমি সবাইকে অনুরোধ করব ছবিটা দেখে সেই কৌতুহল মেটাতে। তবে এটুকু বলতে পারি, ছবির গল্পে এই তারিখটা খুবই গুরুত্বপূর্ণ হয়ে উঠেছে।
• এই ছবিতে অভিনয় করার কারণ কী?‌
•• এই ছবি তো আগেই বলেছি, সেমি আর্বান। এরকম ছবিতেই অভিনয় করতে আমার ভাল লাগে। খুব বেশি অন্ধকার অন্ধকার ছবিও আমার ভাল লাগে না। আবার আলো ঝলমল, নাচ, গান ভরা ছবিও আমার ভাল লাগে না। আর এই ছবিতে একটা খুব সুন্দর সোশ্যাল মেসেজও আছে। যেটা এই প্রজন্মের ছেলে-‌মেয়েদের জন্য খুবই জরুরি। আসলে নিজেদের চাহিদাকে লাগাম পরাতে জানতে হয়। আর সেটা করা যাচ্ছে না বলেই পরিবার ভাঙছে। একান্নবর্তী পরিবার ছেড়ে আমরা সবাই নিউক্লিয়ার ফ্যামিলিতে বিশ্বাস রাখতে শুরু করেছি। আমরা আসলে একা একা বাঁচতে চাইছি। কিন্তু পরিবারে গুরুজনদের প্রয়োজন আছে। সেই শিক্ষাই দেবে এই ছবি।
• আপনার আগামী ছবির কাজ?‌
•• হয়তো পুজোর পর আর একটা ছবির কাজ শুরু হবে। কিন্তু সেটা এখনই বলছি না। এছাড়া পুজোর পরেই মুক্তি পাবে ‘‌ষড়রিপু ২:‌ জতুগৃহ’‌। অয়ন চক্রবর্তীর ছবি। ছবিতে আমার অভিনীত চরিত্র ‘‌মেঘা’‌ বেশ ইন্টারেস্টিং। লাবণ্যর চেয়ে একদমই আলাদা।‌

ছবি:‌ সুপ্রিয় নাগ

জনপ্রিয়

Back To Top