আজকাল ওয়েবডেস্ক:‌ করোনা ভাইরাসের ওপর প্রথম ছবি ঘোষণা। পরিচালক অনুভব সিনহার প্রযোজনায় নোভেল করোনা ভাইরাসের আদ্যপান্ত তুলে আনা হবে ছবিতে। 
অনুভব সিনহার শেষ ছবি ‘‌থাপ্পড়’‌। তাঁর পরেই ঘটনার ঘনঘটা। সুশান্তের মৃত্যু। বলিউডের হাঁড়ি ভাঙল হাটে। সুশান্তের মৃত্যুর পরে অভিযোগের আঙুল উঠল বহু তারকার দিকে। তারপরে শুরু হল বিভিন্ন দিকে বিভিন্ন সংঘর্ষ। এরই মাঝে মহামারীর ওপর প্রথম ছবি ঘোষণা, পাঁচজন পরিচালক মিলে বানাবেন এই ছবিঅনুভব সিনহা তিতিবিরক্ত হয়ে বলিউড ছেড়ে দেওয়ার ঘোষণা করেছিলেন সপ্তাহ কয়েক আগে। তাঁর সঙ্গে নিয়েছিলেন প্রতিভাবান অভিনেতারা। যাঁরা চিরকাল অন্যরকম ছবি বানানোর জন্য বিখ্যাত। হানসল মেহ্‌তা, সুধীর মিশ্রা প্রমুখ। তাঁরা জানিয়েছিলেন, বলিউড আদপে একটি জীবনযাপন। আর সঙ্গে চলচিত্রের কোনও সম্পর্ক নেই। ভাল হিন্দি ছবি বানানো হবে। কিন্তু বলিউডের অন্তর্গত নয়। এই খবরটি পাওয়ার পর বোঝাই যাচ্ছে, তাঁদের যুগ শুরু হয়ে গিয়েছে। হানসাল মেহ্‌তা, সুধীর মিশ্রা, কেতন মেহ্‌তা, সুভাষ কাপুরের সঙ্গে মিলে অনুভব সিনহা এই ছবিটি বানাবেন। পাঁচজনের প্রত্যেকেই একটি করে অংশ পরিচালনা করবেন। প্রযোজনা করবেনু অনুভব। করোনা মহামারী কীভাবে মানুষের জীবনে এল। তারপর থেকে কীভাবে মানুষের জীবনযাত্রা ক্ষতিগ্রস্ত হতে থাকল, সবই থাকবে তাঁদের এই ছবিতে। কিন্তু এর বেশি কিছুই জানা যায়নি এখনও পর্যন্ত। রবিবার বাণিজ্য বিশ্লেষক তারণ আদর্শ এই তথ্য দিয়ে ইনস্টাগ্রামে পোস্ট করলেন। সেই পোস্টটিকেই শেয়ার করলেন অনুভব সিনহা।
এই বিষয়ে কথা বলতে গিয়ে অনুভব সিনহা জানালেন, ‘এক একজন মানুষ এক একভাবে এই মহামারীকে দেখছে। একইভাবে আলাদা আলাদা পাঁচজন পরিচালকের চোখ দিয়ে যদি দেখা যায় এই মহামারীকে, তবে এর থেকে ভাল আর কীই বা হতে পরে। সুধীরের বাবা কোভিডেই মারা গিয়েছেন। আমরা ইরফানকে হারিয়এছি এরই মধ্যে। তাঁর সৎকারেও যাওয়ার পরিস্থিতি ছিল না। তিগমাংসু ধুলিয়ার রাস্তা আটকেছিল পুলিশ। তাঁকে চিৎকার করে বলতে হয়েছিল, ‘‌ইরফান আমার ভাই!‌ আমি যাব।’ এই সমস্ত কিছু আমাদের কাছে যে কী ভয়ানক, বলার নয়। আমার ধারণা এগুলি রেকর্ড হওয়া উচিত। বন্ধু পরিচালকদের সঙ্গে কথা বললাম। তাঁরাও রাজি হলেন। সেখান থেকেই এই ছবির সূত্রপাত।

জনপ্রিয়

Back To Top