আজকাল ওয়েবডেস্ক:‌ 'নাথিং ইজ ইমপসিবল'। বাংলায় তর্জমা করলে দাঁড়ায়, কোনও কিছুই অসম্ভব নয়। সত্যিই হয়ত তাই। নাহলে যে পুরস্কারের জন্য লড়াইয়ে আছেন ‘‌বিগ বি’ অমিতাভ বচ্চন, বলিউডের অন্যতম সেরা অভিনেতাদের একজন মনোজ বাজপেয়ী কিংবা আয়ুষ্মান খুরানার নাম, সেখান তাঁদের সঙ্গে কি না মনোনীত হচ্ছেন ৬৫ বছর বয়সি এক ট্যাক্সিচালক‌। হ্যাঁ, শুনতে অবাক লাগলেও এমনটাই হতে চলেছে। মেলবোর্নে অনুষ্ঠিত ইন্ডিয়ান ফিল্ম ফেস্টিভ্যালে ‘‌নামদেব ভাউ:‌ ইন সার্চ অব সাইলেন্স’ সিনেমায় অভিনয়ের জন্য‌ সেরা অভিনেতার দৌড়ে রয়েছেন ৬৫ বছরের গাড়ির চালক নামদেব ভাউ।
কিন্তু কীভাবে একজনের বাড়িতে ড্রাইভারের কাজ করতে করতে সিনেমা জগতে এলেন নামদেব?‌ সেটাও এক আশ্চর্যজনক ঘটনা। আসলে সিনেমার প্রযোজক ধীর মোমায়ার বাড়িতে ড্রাইভারি করতেন নামদেব। তাঁকে দেখেই প্রযোজক ওই চিত্রনাট্যের জন্য নির্বাচিত করেন। এরপর সিনেমাটির নামও তাঁর নামেই রাখা হয়। পরিচালক দার গাইও প্রথমে বুঝতে পারেননি, যে ব্যক্তি কোনওদিন অভিনয় করেননি, সারাদিন গাড়ি চালিয়েছেন, তিনি কী আদৌ ৯০ মিনিট ক্যামেরার সামনে অভিনয় করতে পারবেন?‌ রিহার্সালের পর অবশ্য নিজের মত বদলান দার গাই। নামদেবকে নিয়ে কাজ করার ইচ্ছাপ্রকাশ করেন তিনি। আর শেষপর্যন্ত সিনেমাটি সমালোচকদের প্রশংসাও কুড়িয়েছে। এই ছবির গল্প হল, এক ব্যক্তি মুম্বইয়ের ব্যস্তজীবনের সঙ্গে এঁটে উঠতে না পেরে একটু শান্তির খোঁজে ‘‌সাইলেন্ট ভ্যালি’–র উদ্দেশে বেরিয়ে পড়েন। আর তাঁর সেই যাত্রা নিয়েই এগিয়ে চলেছে সিনেমাটি। শুধু চিত্রনাট্য নয়, সিনেমায় নামদেবের অভিনয়ও প্রশংসা কুড়িয়েছে। ইতিমধ্যে তাঁর কাছে আরও কাজের অফার এসেও গিয়েছে। তবে শুধু মেলবোর্নে ডাক পেয়েছেন এমন নয়। এর আগে বুসান ইন্টারন্যাশনাল ফিল্ম ফেস্টিভ্যাল–সহ একাধিক ফেস্টিভ্যালে তাঁর অভিনীত সিনেমাটি দেখানো হয়েছে। 
এদিকে, এত কিছুর পর নামদেব নিজের এই সাফল্যের কথা যেন বিশ্বাসই করতে পারছেন না। অমিতাভ বচ্চন, মনোজ বাজপেয়ীর মতো তারকাদের সঙ্গে তিনিও যে সেরা অভিনেতা হওয়ার দৌড়ে রয়েছেন, তাতে বেশ খুশি নামদেব। তাঁর কথায়, ‘মনোনীত হওয়ায় আমি খুব খুশি এবং উচ্ছ্বসিত। আমার পরিবারও খুব খুশি। গোটা একটি সিনেমায় অভিনয় করে ফেলেছি, এটা যেন নিজেরই বিশ্বাস হচ্ছে না। এই সিনেমা করার আগে কোনওদিনও মহারাষ্ট্রের বাইরে পা দিই নি। কিন্তু এখন আমাকে বিদেশেও যেতে হচ্ছে। যে জীবন এখন কাটাচ্ছি, কোনওদিন তার স্বপ্নও দেখিনি। সমস্ত তারকারা ছোটবেলা থেকে কঠোর পরিশ্রম করে তবেই আজকের এই জায়গায় পৌঁছেছেন। আর সেখানে আমি অমিতজি এবং মনোজজি–র মতো তারকার সঙ্গে মনোনীত হয়েছি। আমার তো বিশ্বাসই হচ্ছে না।’ ‌‌

জনপ্রিয়

Back To Top