দুটি মালয়ালি নিউজ চ্যানেলকে বন্ধ করার নির্দেশ দিয়েছিল তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রক। সংবাদমাধ্যমে তোলপাড় হওয়াতে, ৪৮ ঘণ্টা পর নির্দেশ তুলে নেওয়া হয়। কেন্দ্রীয় তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রী প্রকাশ জাভড়েকর বললেন, সরকার সংবাদমাধ্যমের স্বাধীনতায় অগ্রাধিকার দিয়েছে, দেয়, দেবে। কেন দুটি চ্যানেলকে বন্ধ করার নির্দেশ দেওয়া হয়েছিল?‌ দিল্লিতে বিজেপি তথা হিন্দু ব্রিগেডের হামলার খবর বেশি করে দেখানো হয়েছে। দুটি চ্যানেলে শুধু?‌ অস্বীকার করার পথ আছে, কারা কতটা হিংস্র আচরণ করেছে?‌ সন্দেহ আছে, কারা হিংসায় প্ররোচনা দিয়েছে?‌ প্রত্যক্ষ প্রমাণ। দুটি নিউজ চ্যানেলের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিয়ে সম্ভবত পরখ করে দেখা হচ্ছিল, গোটা সংবাদমাধ্যম কী প্রতিক্রিয়া জানায়। প্রতিক্রিয়া স্পষ্ট। ক্ষোভ। সরকারের প্রতিনিধিদের বক্তব্য, দুটি চ্যানেল দেখিয়ে যাচ্ছিল, পুলিশ, স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর নিয়ন্ত্রণাধীন পুলিশ ‘‌নিষ্ক্রিয়’‌ ছিল। সন্দেহ আছে?‌ পুলিশ শুধু নিষ্ক্রিয় থাকেনি, গুন্ডাদের মদত দিয়েছে, বলেছে— ‘‌পাথর ছোড়ো।’‌ দেখানো যাবে না?‌ সরকার পক্ষের অভিযোগ, দুটি নিউজ চ্যানেল দেখিয়েছে, বেশি আক্রান্ত হয়েছেন সংখ্যালঘু মানুষ। সন্দেহ আছে?‌ অধিকাংশ নিউজ চ্যানেল এবং সংবাদপত্র ঘটনায় নির্ভুল তথ্য দিয়েছে। দাঙ্গা বাধানো হয়েছে। পরিকল্পিত গণহত্যার পর দাঙ্গার চেহারা দেওয়া হয়েছে। স্পষ্ট ছবি প্রকাশিত। বাস্তবটা জানিয়ে খারাপ কিছু করেছে সংবাদমাধ্যম?‌ প্ররোচনা দিয়েছে একটি চ্যানেল। ব্যবস্থা নেবেন?‌ গত পাঁচ বছরে দেশে ১৯৮ জন সাংবাদিক গুরুতরভাবে আক্রান্ত হয়েছেন। মৃত্যু হয়েছে ৪০ জনের। সরকার সত্যি সংবাদমাধ্যমের স্বাধীনতায় অগ্রাধিকার দিয়েছে, দেয়?‌

জনপ্রিয়

Back To Top