করোনা ভাইরাসের মতো মারাত্মক ভাইরাসের কথা আগে কেউ শোনেননি। ছিল না, শোনেননি। কেউ দেখেননি। সার্স, মার্স এত ভয়ঙ্কর ছিল না। গোটা পৃথিবীকে সন্ত্রস্ত করেনি। ব্যক্তিগত সতর্কতা অবশ্যই প্রয়োজন। নিজেকে সুস্থ রাখার জন্য, অন্যদের সুস্থ রাখার জন্য। কিন্তু, কঠিন সময়ে যাঁরা আমাদের জন্য প্রাণপণ লড়ছেন, ঝুঁকি নিয়েও করছেন, তাঁদের কথা কতটা ভাবি?‌ এখানে যা দেখছি, মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জির নেতৃত্বে সরকার যথাসাধ্য করছে, হয়তো সাধ্যের বাইরে গিয়েও করছে, করতে হয়েছে। প্রশাসনে দায়িত্বপ্রাপ্তরা দিনরাত এক করে কাজ করে যাচ্ছেন। ডাক্তারদের কথা ভাবুন। কত ঝঁুকি, কত দায়িত্ব। ছুটি নিয়ে ওঁরা বাড়িতে বসে থাকতে পারেন না। পেশাটাকে বাইরে থেকে শাঁসালো মনে হয়, কিন্তু বাধ্যতার এবং সেবার দিকটা মনে রাখি না। ডাক্তারদের বিরুদ্ধে কত অভিযোগ উচ্চারিত হয়। মানুষ অমর নয়, তবু, কারও মৃত্যু হলেই, কিছু ক্ষেত্রে শারীরিক আক্রমণের সামনে পড়তে হয় ডাক্তারদের। লড়ছেন। পুলিশ কর্মীদের কথা ভাবুন। সারা বছর কাজ, কঠিন সময়ে পরিশ্রম দ্বিগুণ হয়ে যায়, হয়তো তিনগুণ। বাড়িতে বসে থাকার উপায় নেই। ডাক্তারদের প্রসঙ্গে আর একটা কথা বলতে হবে। নার্স এবং স্বাস্থ্যকর্মীরা কত পরিশ্রম করছেন। কার্যত অক্লান্ত। পুরসভার অনেক কর্মীকে জরুরি ভিত্তিতে দ্বিগুণ কাজ করে যেতে হচ্ছে। দমকল কর্মীদের সজাগ থাকতে হয়, এমন বিপদেও, বাড়িতে বসে থাকার উপায় নেই। আমরা কী করতে পারি?‌ নিজেদের এবং অন্যদের নিরাপদ রাখতে পরিচ্ছন্ন থাকতে পারি। আর কিছু?‌ হ্যাঁ। ধন্যবাদ জানাতে পারি, কৃতজ্ঞ থাকতে পারি তাঁদের কাছে।  ‌‌‌

জনপ্রিয়

Back To Top