কাঁথিতে অমিত শাহর সভা সফল!‌ না। অভূতপূর্ব সমাবেশ হয়নি। কাঁথি লোকসভা কেন্দ্রে বিজেপি–‌র ভাল ফল পাওয়ার বিন্দুমাত্র সম্ভাবনা নেই। তবু কেন সফল?‌ অমিতবাবুর ভাষণে ছিল ভুল তথ্য, অসংখ্য মিথ্যা এবং ভয়ঙ্কর প্ররোচনা। ফল পেয়েছেন। সভা শেষ হওয়ার পরেই উপযুক্ত বিজেপি কর্মীরা ভাঙচুর করেছে তৃণমূল দপ্তরে। অনেক গাড়িতে ওরা আগুন লাগিয়েছে, তার মধ্যে প্রতিবন্ধীদের বাসও আছে। পরদিন, ৩০ জানুয়ারি কলকাতায় শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চ্যাটার্জির গাড়ি আটকে গন্ডগোল পাকানোর চেষ্টা। রাহুল সিনহা বললেন, এবার থেকে বিজেপি–‌র লোকেরা সব সভায় লাঠি নিয়ে যাবেন। হিংস্র, সাম্প্রদায়িক, প্ররোচনামূলক ভাষণ সর্বভারতীয় সভাপতির। শুরু হয়ে গেল ওদের তাণ্ডব। মুখ্যমন্ত্রীর ছবি নিয়ে সম্পূর্ণ অসত্য তথ্য দিলেন শাহ। আইনি চিঠি পাঠিয়েছেন মহিলা তৃণমূল কংগ্রেসের সভানেত্রী। এমন মিথ্যা চলতেই থাকবে, রাজ্যে ‘‌শূন্য’‌–‌দর্শন না হওয়া পর্যন্ত। হ্যাঁ, ভোটে এরকমই হওয়ার কথা। মিথ্যা বলতে বলতে অপ্রয়োজনীয় মিথ্যাও বেরিয়ে যায়। যথা, অমিত শাহ বললেন, রাজ্যে ২৫ বছর ক্ষমতায় ছিল কমিউনিস্টরা!‌ গোলগোল চোখে শ্রোতাদের দিকে তাকিয়ে বলে দিলেন, বাংলায় দুর্গাপুজো, সরস্বতী পুজো করা যায় না!‌ জানেন না, এ রাজ্যে দুর্গাপুজো হয় ৩০ হাজার?‌ সরস্বতী পুজো ১৮ হাজার?‌ আরও একটা কথায় চমকে দিলেন মোদির ‘‌দ্বিতীয়’‌। লোকসভা ভোটের ফল বেরোনোর দিন, ১০টায় প্রথম রাউন্ড, ১১টায় প্রথম রাউন্ড...,‌ ১টায় ফল ঘোষণা, ২টোয় মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জির বিদায়!‌ ধরা যাক, ৪২–‌এর মধ্যে সাড়ে ৪২ পেয়ে গেল বিজেপি, তাতে রাজ্য সরকার চলে যাবে?‌ কিছু পাবে না বিজেপি। কিন্তু শাসক দলের সভাপতি যা বললেন, নতুন সংবিধান শিখতে হবে। আম্বেদকর প্রয়াত। নতুন সংবিধান রচনায় নেতৃত্ব দেবেন কে, অমিত শাহ?‌

জনপ্রিয়

Back To Top