ইংল্যান্ড সফরেই চোট পেয়েছিলেন বিরাট কোহলি। তবু, ব্যথা সহ্য করেও পঞ্চম টেস্ট পর্যন্ত খেলে যান ভারত অধিনায়ক। সামনে অনেক টেস্ট, তারপর বিশ্বকাপ, এশিয়া কাপে বিশ্রাম দেওয়া হয় তাঁকে। দায়িত্ব পেলেন রোহিত শর্মা, যিনি একদিনের টিমে থাকেন সহ–অধিনায়ক। রোহিত দুবাইয়ে ৫ ম্যাচে ৩১৭ করে টিমকে চ্যাম্পিয়ন হতে সাহায্য করলেন। তারপর সরাসরি বললেন, স্থায়ী অধিনায়ক ‌হতে প্রস্তুত!‌ আগে দেখে নেওয়া যাক, কীভাবে জয়ী ভারত। হংকংয়ের বিরুদ্ধেও কষ্টার্জিত জয়। ফাইনালে জয় এসেছে শেষ বলে। তার আগে আফগানিস্তানের সঙ্গে টাই, হেরে যাওয়া অসম্ভব ছিল না। কোনও ম্যাচের কঠিন সময়ে সিদ্ধান্ত নেওয়ার জন্য যেতে হচ্ছিল এক এবং অদ্বিতীয় ধোনির কাছে। হঠাৎ রোহিতের মনে হল কেন, ‘‌স্থায়ী অধিনায়ক’‌ হতে পারেন?‌ বললেন কেন যে, প্রস্তুত?‌ টেস্ট দলে সাধারণত জায়গা নেই তাঁর। শুধু একদিনের ক্রিকেটে অধিনায়ক হবেন?‌ পৃথিবীর এক নম্বর ব্যাটসম্যান বিরাট কোহলি। দায়িত্ব নিয়ে ম্যাচ জেতানোর ব্যাপারেও এক নম্বর। অধিনায়ক হিসেবে আক্রমণাত্মক। তরুণ ক্রিকেটারদের উদ্দীপ্ত করেন। ফিটনেস ও ফিল্ডিংয়ে নিজে দৃষ্টান্ত হিসেবে অন্যদের উন্নত করেছেন। তাঁর বিকল্প খোঁজার তো এখন প্রশ্নই উঠছে না। অধিনায়ক রোহিত আইপিএল–এ চ্যাম্পিয়ন করেছেন মুম্বই ইন্ডিয়ান্সকে, কিন্তু আইপিএল আর আন্তর্জাতিক ক্রিকেট এক নয়। কয়েক মাস পর ইংল্যান্ডে বসছে বিশ্বকাপের আসর। মিডল অর্ডারের ফাঁকফোকর ভরাট করার চেষ্টা চলছে। কঠিন অস্ট্রেলিয়া সফরের পর বিশ্বকাপের পরীক্ষা। চাই দলগত সংহতি। এই সময়ে রোহিতের মতো একজন সিনিয়র ক্রিকেটার স্থায়ী অধিনায়ক হওয়ার ইচ্ছার কথা প্রকাশ্যে বললেন কেন?‌ একজন মোটামুটি সাফল্যের সঙ্গে অধিনায়কত্ব করছেন, নিঃসন্দেহে টিমের এক নম্বর ক্রিকেটার, তাঁর কাছে কী বার্তা নিয়ে যাচ্ছে রোহিতের মন্তব্য?‌ ভারতীয় বোর্ডকর্তা ও নির্বাচকদের কড়া কথা বলে দেওয়া উচিত রোহিত শর্মাকে।‌‌‌

জনপ্রিয়

Back To Top