আমেরিকার প্রথম প্রেসিডেন্ট জর্জ ওয়াশিংটন সম্পর্কে বলা হত, তিনি যদি কিছু বলেন, ধরে নিতে হবে সত্যি। বলা হয়, জীবনে একটা মিথ্যা বলেননি। জর্জ ওয়াশিংটনের মতো দেশনেতা পৃথিবীর ইতিহাসেই বিরল। সবার কাছে তঁার মতো সত্যবাদিতা আশা করা যায় না। আমেরিকার কারেন্সি নোটের ওপর থাকে তঁার ছবি। এখনও পর্যন্ত কেউ বলেননি, বিকল্প ছবি থাকতে পারে। সেই দেশেরই বর্তমান প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। তঁার নীতি— ‘‌আমেরিকা ফার্স্ট’‌। সারা পৃথিবীর দায়িত্ব আমরা নেব না, কোন দেশ কোথায় বিপদে পড়েছে তার জন্য আমরা ঝঁাপিয়ে পড়ব না, কোনও শরণার্থীকে আশ্রয় দেব না, উচ্চ মেধার সূত্রেও যে–‌বিদেশিরা (‌অনেকেই ভারতীয়)‌ ভাল জায়গায় ভাল কাজ করছেন— তঁাদের থাকা সহজ হতে দেব না। বহু মার্কিনির পছন্দ হয়েছে ট্রাম্পের কথা, না–‌হলে কী করেই বা হিলারি ক্লিন্টনের মতো প্রার্থীকে হারিয়ে গদিতে বসতে পারেন ট্রাম্প। বিরোধীদের, অধিকাংশ সংবাদমাধ্যমকে কুকথা না বলে এক রাতেও ঘুমোতে যান না, এক সকালেও ব্রেকফাস্ট সারেন না। পরিসংখ্যান বলছে, কুকথার হিসেব রেখে লাভ নেই, ২০১৮ সালে সরাসরি অসত্য বলেছেন ১৮৬৫টি। এর বাইরে আছে বানানের ভুল, নামের ভুল, ভাষার ভুল, তথ্যের ভুল। তিনি টুইটে বাচাল। সম্প্রতি বলেন, ‘প্রাক্তন প্রেসিডেন্ট বারাক ও ফার্স্ট লেডি মিশেল ওবামা নিজেদের বাড়ির চারপাশে ১০ ফুট উঁচু দেওয়াল তুলেছেন।‌ বেশ করেছেন। সুরক্ষার জন্য প্রয়োজন। তেমনই, মেক্সিকো সীমান্তে লোক ঢোকা বন্ধ করার জন্য ৫০ ফুট দেওয়াল তোলার কথা বারবার বলছি।’‌ সংবাদমাধ্যম পরদিনই জানাল, মিথ্যা। মানে, ১০ ফুট নয়, অনেক নিচু দেওয়াল?‌ না। ওবামাদের বাড়িতে দেওয়ালই নেই!‌‌‌‌

জনপ্রিয়

Back To Top