অর্থমন্ত্রী অরুণ জেটলি যে বাজেট–‌অঙ্ক একেবারেই মেলাতে পারেননি তা নয়। মধ্যবিত্তদের সামান্য ছাড়ের ঘোষণার সঙ্গেই রয়ে গেছে বাড়তি সেস–‌এর ঘোষণা। যা আসবে, যাবেও তা–‌ই। মিলে গেল! পেট্রোপণ্যের দামের ক্ষেত্রেও একই চালাকি। টেলিভিশনে দেখানো শুরু হল, দাম কমছে পেট্রল–‌ডিজেলের। খানিক পরেই অঙ্ক মিলিয়ে দেওয়া। একটি ঘোষণায় কমিয়ে, অন্য ঘোষণায় বাড়িয়ে দেওয়া। এবারের বাজেটে সবচেয়ে বড় চমক আয়ুষ্মান প্রকল্প। দেশের ১০ কোটি পরিবারের মানুষের চিকিৎসার জন্য দেওয়া হবে মাথাপিছু বার্ষিক ৫ লক্ষ টাকা। দারুণ ব্যাপার। ১০ কোটি পরিবার মানে ধরে নিন ৫০ কোটি মানুষ। হতদরিদ্র মানুষের চিকিৎসাতেও বছরে ৫ লক্ষ টাকা মাথাপিছু। অর্থমন্ত্রী জানাতে ভোলেননি, এটা হল পৃথিবীর সবচেয়ে বড় স্বাস্থ্য বাজেট প্রকল্প। ওবামাকেয়ারকে হারিয়ে মোদিকেয়ার। বাজেট বক্তৃতার এই অংশটা জেটলিজি হিন্দিতে পড়েছেন। মধ্যপ্রদেশ, রাজস্থান, ছত্তিশগড়— তিন হিন্দি–‌রাজ্যে বিধানসভা নির্বাচন আসন্ন এবং রাজস্থানের উপনির্বাচন পরিষ্কার দেখিয়ে দিল, বিজেপি–‌র হাল সুবিধের নয়। বিশাল জনমুখী প্রকল্প ঘোষণা হিন্দিতে, যাতে হিন্দিভাষীরা সহজেই বুঝতে পারেন। গন্ডগোলটা অন্য জায়গায়। প্রথমত, ৫০ কোটি মানুষকে এমন উন্নত মানের চিকিৎসা দেওয়ার পরিকাঠামো আছে কি দেশে?‌ নেই। নেই জেনেও ঘোষণা কেন?‌ ভোট। দ্বিতীয়ত, খরচ। বাজেটে এমনিতেই ঘাটতি ৩.‌৫ শতাংশ। এবং আয়ুষ্মান প্রকল্পের জন্য নির্দিষ্ট বরাদ্দ স্পষ্ট নয়। অভিরূপ সরকার হিসেব কষে দেখিয়ে দিয়েছেন, এই প্রকল্প রূপায়িত করার জন্য আনুষঙ্গিক খরচ–‌সহ বছরে দরকার ৩ লক্ষ কোটি টাকা! এই ৩ লক্ষ কোটি টাকা আসবে কোথা থেকে?‌ মনমোহন সিং বলেছেন, ভোটের কথা ভেবে বাজেটে কিছু ঘোষণার মানে বোঝা যায়। কিন্তু অঙ্কেই যে বিরাট গোলমাল। গোলমেলে বাজেটের জন্য মোদি–‌জেটলিকে অভিনন্দন জানাবেন কি না, ভারতবাসী ভেবে দেখুন।‌

জনপ্রিয়

Back To Top