কীভাবে মাস্ক পরতে হবে, ঘরে বানানো পরলেও চলবে, ভয়াল ভাইরাস আসার শুরুতেই দেখিয়ে, বুঝিয়ে দিয়েছিলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জি। ঘন ঘন হাত ধুতে হবে, প্রতিবার অন্তত ২০ সেকেন্ড, কনুই পর্যন্ত, সবই দেখিয়েছিলেন। মাস্কের কথায় আসি। বলা হচ্ছে, মাস্ক বেশ কিছুদিনের জন্য জনজীবনে বাধ্যতামূলক হয়ে থেকে যাবে। এমনকী, ভাইরাসের সংক্রমণ যখন কমে যাবে, সাবধানিরা স্থায়ীভাবে মাস্ক পরবেন। একটা স্টাইল দেখে নিশ্চয় ভাল লাগছে না। কেউ কেউ রাস্তাঘাটেও মাস্কটা গলায় ঝুলিয়ে রেখেছেন। জানতে চাওয়া হল এক ব্যক্তিকে, এভাবে রেখেছেন কেন, মাস্ক দিয়ে মুখ নাক ঢাকেননি কেন? ভদ্রলোক বললেন, পথে বেশি লোক নেই, ভিড়ে গেলে মুখ ঢেকে নেব, আর, মাস্কটা তো সঙ্গে রেখেছি। একজন আবার পুলিশকর্মীকে ধমকে দিলেন, মাস্ক পরব কিনা আমার ব্যাপার, পুলিশের কী?‌ ভবিষ্যতেও থাকবে মাস্ক? নাটক–‌সিনেমায় নানা চরিত্রের মুখে মাস্ক?‌ অভিনেতারা মুখের অভিব্যক্তি দেখানোর সুযোগ পাবেন না?‌ পরিস্থিতি স্বাভাবিক হলে, শিল্পীরা অনুষ্ঠানে মাস্ক পরে ভালভাবে গাইতে পারবেন?‌ বইমেলায় যদি লেখকরাও মাস্ক পরেন, পাঠকরা কি সাহিত্যিকদের চিনতে পারবেন? ভাবা যাক, দীর্ঘস্থায়ী হবে না সবটা। স্বাভাবিক হবে। ইতিমধ্যে নানা রঙের মাস্ক দেখা যাচ্ছে। কিছু ক্ষেত্রে ডিজাইন। ভাল। পুজোয় যতটুকু ক্রয়বিক্রয় হবে, ডিজাইন আসবে নতুন নতুন, মাস্ক–‌এর। রাজনীতিকরা একরঙা মাস্ক পরছেন। স্বাভাবিক। কেউ কি অন্যরকম? আছেন, একজন, বিজেপি রাজ্য সভাপতি। দিলীপবাবু মাস্ক–‌এ লাগিয়েছেন পদ্মফুল ছাপ!‌‌

জনপ্রিয়

Back To Top