চাই। আশা করি। সামান্য ভদ্রতা। ভদ্র হিসেবে বাঙালির সুনাম আছে। ব্যতিক্রম আছে, কিন্তু সংখ্যায় কম। বাংলা একজন আইকনকে হারাল। অভিনেতা হিসেবে জগদ্বিখ্যাত। নাট্যকার, কবি, সম্পাদক, আবৃত্তিকার পরিচয়েও উজ্জ্বল থেকেছেন। তঁার শেষযাত্রায় শুধু মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জি–‌সহ বিশিষ্ট ব্যক্তিরা নন, ছিলেন বহু অনুরাগী। কবিতা, গানে সজল পরিবেশ। সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায় যখন মৃত্যুর সঙ্গে লড়ছেন, ক্রমশ সঙ্কট ঘনিয়ে আসছে, তখনও কিছু বাঙালির নির্মম অভদ্রতায় আমরা সত্যিই মর্মাহত। প্রয়াত অভিনেতার পুত্র–‌কন্যাদের নিয়ে সোশ্যাল মিডিয়ায় কুৎসিত কথা। যঁারা করেছেন, তঁাদের কোনও তথ্য নেই, ছিল শুধু অসভ্যতা। সৌমিত্র–‌কন্যা পৌলোমী মর্মপর্শী প্রতিবাদ সমাজমাধ্যমেই করেছেন। সৌমিত্র যে শেষ লড়াইয়ে আর পেরে উঠছেন না, বোঝা যাচ্ছিল। প্রাণপণ লড়েছেন ডাক্তাররা। শেষদিকে বলেছেন, অনুরাগীরা প্রার্থনা করুন। এই সময়ে ছড়িয়ে দেওয়া হল রোগশয্যায় অক্সিজেন নল–‌সহ অবসন্ন নায়কের ছবি। কন্যা পৌলোমী আবেদন করলেন, একটু সহানুভূতিশীল হোন। প্রয়ানের পর আরও স্পষ্ট হল, বাঙালি সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায়কে কোন আসনে বসিয়ে রেখেছে। স্মৃতিচারণ, শ্রদ্ধা অফুরন্ত। কংগ্রেস নেতা অধীর চৌধুরি বাড়িতে গিয়ে পৌলোমীর সঙ্গে কথা বললেন। বেরিয়ে বক্তব্য, ‘‌রাজ্য সরকার তঁাকে যোগ্য সম্মান দেয়নি!‌’‌ মুখ্যমন্ত্রী শুধু ডাক্তারদের সঙ্গে যোগাযোগ রাখেননি, চিকিৎসার যাবতীয় ব্যবস্থা করেননি, প্রতিদিন কন্যার সঙ্গে কথা বলেছেন। গান স্যালুট। শেষ যাত্রায় স্বয়ং মমতা। বাংলায় সর্বোচ্চ নাগরিক সম্মান অনেক আগেই দিয়েছেন। কংগ্রেস নেতার কাছে সামান্য ভদ্রতা আশা করি।‌‌

জনপ্রিয়

Back To Top