কয়েন নিয়ে কানাকানি থামছেই না। কী সেই কানাকানি?‌ অমুক কয়েন বাতিল, তমুক কয়েন অচল। সুতরাং কয়েন নেব না। এই অবস্থা চলছে দীর্ঘদিন ধরে। নোট বাতিলের পর গোটা দেশ জুড়ে শুরু হয়েছিল কয়েনের বাড়াবাড়ি। বাজারে এত কয়েন এসে পড়েছিল যে ব্যবসা–‌বাণিজ্য লাটে ওঠবার জোগাড় হয়েছিল। বিভিন্ন ব্যাঙ্ক পর্যন্ত কয়েন নেব না বলে মুখ গোঁজ করে বসে আছে। চাল, পেঁয়াজ, আলু নিয়ে বিক্ষোভের পাশাপাশি দেশ জুড়ে শুরু হয়েছিল কয়েন নিয়ে বিক্ষোভ। একটাই দাবি, কয়েনের বাড়াবাড়ি মানছি না মানব না। বড় বড় বিক্ষোভের পাশে খুচরো নিয়ে খুচরো সমস্যা তো লেগেই আছে। বাসে, ট্রামে, অটোতে রোজ ঝগড়া। দোকান বাজারেও ক্রেতা –‌বিক্রেতারা বেঁকে বসেছে। সরকার প্রথমটায় গা করেনি। পরে রিজার্ভ ব্যাঙ্ক বিজ্ঞপ্তি জারি করে ধমক–‌ধামক দিল। কয়েন নিয়ে গোলমাল চলবে না। কয়েন নিতে হবে। সেই ধমককে কোনও কাজ হয়নি। হলেও হয়েছে অতি নগন্য। নোট বাতিল করে মানুষকে যে প্রবল কষ্টের মধ্যে রির্জাভ ব্যাঙ্ক ফেলতে পেরেছিল, তার পর বিন্দুমাত্র স্বস্তি দিতে পারেনি, কয়েন বাড়বাড়ন্তে। অবস্থা হাতের বাইরে চলে যাচ্ছে দেখে, শেষ পর্যন্ত সরকার কয়েন উৎপাদনই স্থগিত রেখেছে। বাজারে যেটুকু আছে থাক, নতুন করে আর কয়েন আসবে না। এবার শুরু হয়েছে নতুন বিপদ। অনেক কয়েন নাকি অচল। আবার বিজ্ঞপ্তি জারি করেছে রিজার্ভ ব্যাঙ্ক। সব কয়েনেই সচল। দেওয়া–‌নেওয়ায় কোনও সমস্যা নেই। একথা সবাই শুনবে তো?‌ অতীতের অভিজ্ঞতা বলছে, না, শুনবে না। কড়া শাস্তির ব্যবস্থা না হলে অরাজকতা চলতেই থাকবে। কান নিয়ে কানাকানি থামাতে কান ধরে টান দিতে হবে

জনপ্রিয়

Back To Top