সুরেন্দ্র সিং। নামটা হয়তো শোনেননি। কিন্তু উনি যথেষ্ট গুরুত্বপূর্ণ। উত্তরপ্রদেশের বালিয়া জেলার বৈরিয়া কেন্দ্রের বিধায়ক। এবং রাজ্য বিজেপি–‌র বেশ নামকরা নেতা। তিনি যা বললেন, বিস্তারিত প্রকাশিত হয়নি সংবাদমাধ্যমে। যেখানে প্রকাশিত হয়েছে, নিতান্তই সংক্ষেপে। কী বলছেন, শুনে নিন। ভারত হিন্দুরাষ্ট্র হবেই। ১৯৯৩ সালে একান্ত সাক্ষাৎকারে লালকৃষ্ণ আদবানি বলেছিলেন, ভারত কখনওই হিন্দুরাষ্ট্র হবে না। হিন্দু সংস্কৃতির প্রাধান্য থাকুক, ইতিবাচক দিকগুলো দেশবাসী গ্রহণ করুক, এটাই চায় বিজেপি। প্রায় ২৫ বছর পর দেখা যাচ্ছে, দলের মধ্যে ব্যাপারটা আর সেই জায়গায় নেই। আরএসএস নেতৃত্বের কেউ কেউ তো বটেই, বিজেপি সাংসদ ও বিধায়কদের মধ্যেও অনেকে হিন্দুরাষ্ট্রের কথা বলতে শুরু করেছেন। যেমন, ২০১৮ সালেই অযোধ্যার বিতর্কিত জমিতে রামমন্দির নির্মাণ শুরু হবে, বলা হচ্ছে। যা–‌ই হোক, সুরেন্দ্র সিং ‘‌হিন্দুরাষ্ট্র’‌ হওয়ার ঘোষণা করেই থেমে যাননি। বলছেন, তখন অন্য ধর্মাবলম্বীদের হিন্দুত্বের আদর্শ মেনে নিতে হবে। হিন্দু অভ্যেস ও সংস্কৃতির সঙ্গে জুড়ে যেতে হবে। যারা পারবে না, তাদের অন্য কোনও দেশে গিয়ে থাকতে হবে!‌ ধর্মীয় রাষ্ট্র আছে কিছু, তবে কোথাও অন্য ধর্মাবলম্বীদের দেশত্যাগের কথা বলা হয় না। সুরেন্দ্র সিং প্রবল আশাবাদী। মনে করেন, ২০২৪ সালেই হিন্দুরাষ্ট্র হবে ভারত, ‘‌অবতার পুরুষ’‌ নরেন্দ্র মোদির নেতৃত্বে (‌বেশ, বছর সাতেক সময় পাওয়া গেল!‌)‌। ভাবুন, ২০১৯ সালে লোকসভা ভোটে জয় নিয়ে সুরেন্দ্রর সংশয় নেই, ২০২৪ সালেও বিজেপি ভোটে জিতে ক্ষমতায় থাকবে, নিশ্চিত বৈরিয়ার বিধায়ক। সুরেন্দ্র সিং, সাত বছরে সব নদীতে অনেক জল গড়াবে, দেশটার নাম ভারতবর্ষ।‌‌

জনপ্রিয়

Back To Top