৫ সেপ্টেম্বর, শিক্ষক দিবসে দু’‌টি অসাধারণ বচন পাওয়া গেল। বিশেষ অনুষ্ঠানে কেন্দ্রীয় শিক্ষামন্ত্রী রমেশ পোখরিয়াল নিশঙ্ক বিস্তারিত ভাষণ দিলেন। সমাজে শিক্ষকদের ভূমিকা কত গভীর, ব্যাখ্যা করলেন। উদাহরণ দিলেন, প্রণব মুখার্জি শিক্ষক হিসেবে কর্মজীবন শুরু করে ভারতের রাষ্ট্রপতি হয়েছিলেন। পোখরিয়াল নিজে ছিলেন শিক্ষক, সেই থেকে উঠতে উঠতে উঠতে আজ কেন্দ্রীয় শিক্ষামন্ত্রী। শিক্ষকরা সমাজে শ্রদ্ধেয়। তঁাদের জন্য বিশেষ কিছু করার কথা কি ভাবছে কেন্দ্রীয় সরকার?‌ না। এব্যাপারে একটা কথাও নেই মন্ত্রীর দীর্ঘ ভাষণে। শেষে একটা গুরুত্বপূর্ণ কথা বলেছেন। আদর্শ শিক্ষা হল, যেখানে ছাত্রছাত্রীদের প্রশ্ন তোলার অধিকার আছে। দেশের বিশিষ্ট শিক্ষাবিদরা কথাটা বলেন। অমর্ত্য সেন বহুবার বলেছেন, উচ্চশিক্ষার প্রাঙ্গণে ছাত্ররা প্রশ্ন তুলবেন, শুধু পড়াশোনা নয়, সামাজিক, অর্থনৈতিক, রাজনৈতিক বিষয়ে, সেটাই থাকা উচিত। শিক্ষাক্ষেত্র নিয়েও তঁাদের প্রশ্ন শুনতে হবে। মাননীয় মন্ত্রীকে প্রশ্ন, এই প্রশ্ন করার অধিকার কি তঁাদের সরকার দেয়?‌ নাকি, মুখ বন্ধ করে দেওয়া হয়?‌ ৬ বছরে একটিও সাংবাদিক সম্মেলন করেননি প্রধানমন্ত্রী। প্রশ্নের উত্তর?‌ ৫ সেপ্টেম্বর মন্ত্রী পীযূষ গোয়েল বলেন, প্রধানমন্ত্রী মোদি হলেন যুক্তরাষ্ট্রীয় ব্যবস্থার শ্রেষ্ঠ পূজারি। সে কী?‌ ৬ বছরে যিনি যুক্তরাষ্ট্রীয় কাঠামোটাকে চুরমার করে দিলেন, জিএসটি বাবদ রাজ্যের প্রাপ্য (‌যা অর্থমন্ত্রী অরুণ জেটলি লিখিতভাবে দিয়েছিলেন)‌ টাকা দিচ্ছে না কেন্দ্র। রাজ্যপাল পদের অপব্যবহার বাড়িয়েছেন ৬ বছরে। অতিমারীর সঙ্কটে রাজ্যের ওপর সব সিদ্ধান্ত চাপিয়ে দিলেন। তিনি যুক্তরাষ্ট্রীয় ব্যবস্থার শ্রেষ্ঠ পূজারি?‌‌‌

জনপ্রিয়

Back To Top