আজকাল ওয়েবডেস্ক:‌ ব্যাঙ্ক জালিয়াতির দায় যে সরকারের নয় তা আরও একবার স্পষ্ট করে দিলেন কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী অরুণ জেটলি। এই নিয়ে দ্বিতীয়বার পিএনবিকাণ্ড নিয়ে মুখ খুললেন কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী। একটি আলোচনা সভায় দিলীপ বলেন, এই ধরনের ঘটনায় সবচেয়ে বড় দায়িত্ব যাঁরা ঋণ নিয়ন্ত্রণ করছেন তাঁদের উপর। তাঁরাই দায়িত্বজ্ঞানহীন কাজ করেছেন। যে সম্পর্কের ভিত্তিতে এই ঋণদেওয়া হয়েছে তা চূড়ান্ত অনৈতিক বলে দাবি করেছেন তিনি। দেশের এই ব্যবস্থাকে আরও বেশি করে নৈতিক করে তোলা উচিত। আর এই কাজে একমাত্র গুরুত্বপূর্ণ দায়িত্ব পালন করতে পারেন রেগুলেটর এবং অডিটররা। 
নেতারা তাঁদের যাবতীয় কর্মকাণ্ডের জন্য জবাবদিহি করতে বাধ্য থাকেন, সেখানে রেগুলেটর ও অডিটরদের কোনও জবাবদিহি করতে হয় না। তাঁরা কোনও দায় নেন না। 
যদিও জেটলির এই দাবির পাল্টা জবাব দিয়েছেন কংগ্রেস নেতা কপিল সিবল। তাঁর পাল্টা অভিযোগ দেশের এতবড় ব্যাঙ্ক জালিয়াতির কথা কেন্দ্রের অর্থমন্ত্রক বা শাসক দলের কেউ জানবে না এটা হতে পারে না।  যদিও জেটলি সে প্রশ্নের জবাব এড়িয়ে গিয়েছেন। তাঁর পাল্টা দাবি, যে হারে ব্যাঙ্ক জালিয়াতি এবং ঋণ খেলাপির ঘটনা বাড়ছে তাতে পরিস্থিতি উদ্বেগজনক। ব্যাঙ্কের একাধিক শাখায় এই ধরনের জালিয়াতি হচ্ছে, সেখানে নজরদারি চালানোর লোক থাকা সত্ত্বেও কারোর নজরে পড়ছে না । এটা একটা ভয়ঙ্কর পরিস্থিতি। কেই জালিয়াতির ঘটনা নজরে পর্যন্ত করছেন না। 
এর আগে পিএনবি কাণ্ডে ব্যাঙ্ককেই দোষী বলেছিলেন জেটলি। এই পরিস্থিতি থেকে দেশকে বেরিয়ে আসতে হলে আরও বেশি সচেতন হওয়ার কথা বলেছেন কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী। দেশ যাতে প্রতারণার শিকার না হয় তা সুনিশ্চিত করতে প্রতারকদের ধরতে সবরকম চেষ্টা করা হবে বলে জানিয়েছেন তিনি। 

 

 

‌‌

জনপ্রিয়

Back To Top