আজকালের প্রতিবেদন: বাংলায় বেশ কয়েকটি শিল্পক্ষেত্রে লগ্নি করতে আগ্রহী আজারবাইজান। এর মধ্যে রয়েছে তথ্য–প্রযুক্তি, কৃষি, খাদ্যপ্রক্রিয়াকরণ, পর্যটন, রসায়ন, পেট্রোরসায়ন। শনিবার কলকাতায় এ কথা জানিয়েছেন ভারতে আজারবাইজানের রাষ্ট্রদূত আশরাফ শিখালিয়েভ। এদিন তিনি বেঙ্গল ন্যাশনাল চেম্বার অফ কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রি (‌বিএনসিসিআই)‌ আয়োজিত ‘‌গ্লোবাল ট্যুরিজম সামিট ২০১৯’‌ অনুষ্ঠানে যোগ দিয়েছিলেন। সহযোগিতায় টেকনো ইন্ডিয়া গ্রুপ। ভারত এবং আজারবাইজানের মধ্যে সম্পর্ক আরও ভাল, বিনিয়োগ আরও বাড়াতে এই বণিকসভা বিশেষ উদ্যোগ নিয়েছে। ‌বিএনসিসিআই প্রেসিডেন্ট সত্যম রায়চৌধুরী বলেন, ‘‌এদেশ থেকে খুব শিগগির বণিক প্রতিনিধিদল আজারবাইজানে যাবে। ওই দেশ থেকেও বাণিজ্য প্রতিনিধিরা এখানে আসবেন। সেখানে কোন ক্ষেত্রে লগ্নি করা যেতে পারে, তা আলোচনা করা হবে। দু’‌দেশের সম্পর্ক আরও ভাল হবে। ভারতে আজারবাইজানের রাষ্ট্রদূত আমাদের সেই দায়িত্বই দিয়ে গেলেন। এই কাজে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করবে বিএনসিসিআই। নিরন্তর যোগাযোগ রেখে চলতে হবে। আমরা অন্য বণিক সংগঠনেরও সহযোগিতা চাই।’‌
এদিনের অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন‌ বিএনসিসিআইয়ের সিনিয়র ভাইস প্রেসিডেন্ট শুভ্র চন্দ্র, বিশিষ্ট চিত্রশিল্পী শুভাপ্রসন্ন, কলকাতায় চীনের কনসাল জেনারেল ঝা লিইয়ু, ভারতে আজারবাইজানের রাষ্ট্রদূত আশরাফ শিখালিয়েভের স্ত্রী ইললরা শিখালিয়েভা, ইউনিভার্সাল সাকসেসের চেয়ারম্যান সুবর্ণ বসু, সিঙ্গাপুর ইন্ডিয়ান চেম্বার অফ কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রির ভাইস চেয়ারম্যান প্রসূন মুখার্জি, আমেরিকার নেক্সজেন সিস্টেমসের প্রেসিডেন্ট এবং সিইও অশোক মোতায়েদ–সহ বিশিষ্টরা।


সত্যম রায়চৌধুরী বলেন, ‘‌এদিনের অনুষ্ঠান মূলত পর্যটনকে কেন্দ্র করে ছিল। তবে বিভিন্ন শিল্পের প্রতিনিধিরা যোগ দিয়েছিলেন। ছিল তথ্য–প্রযুক্তি, শিক্ষা–সহ আরও কয়েকটি ক্ষেত্রের প্রতিনিধিরা। মালয়েশিয়া, সিঙ্গাপুর, আমেরিকা, চীনের প্রতিনিধিদের যুক্ত করতে পেরেছিলাম।’‌
প্রথমবার কলকাতা সফরে এসে মুগ্ধ আশরাফ শিখালিয়েভ। কলকাতার আতিথেয়তা মন ছুঁয়েছে তাঁর। চেখে দেখেছেন মিষ্টি দই। সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে আশরাফ শিখালিয়েভ জানান, এ রাজ্যে কৃষি, তথ্য–প্রযুক্তি, পর্যটন, পেট্রোরসায়নে বিনিযোগের সম্ভাবনা রয়েছে। চলতি মাসে ভারতের রাজধানী দিল্লি এবং আজারবাইজানের রাজধানী বাকুর মধ্যে সরাসরি বিমান পরিষেবা চালু হয়ে যাবে। এর ফলে দুই দেশের মধ্যে যাতায়াত আরও সহজ হবে। বাঁচবে সময়। সেখানে গ্রীষ্ম, শীতকালীন পর্যটন যেমন রয়েছে তেমনই আয়োজিত হয় ‘‌ওয়াইন ফেস্টিভ্যাল’‌। আজারবাইজানের খাবারদাবার সুস্বাদু। সেখানে ১০০ রকমের বিরিয়ানি পাওয়া যায়। পর্যটকেরা তার স্বাদ নিতে পারবেন। আর প্রাকৃতিক সৌন্দর্যও অতুলনীয়। ‘‌ডেস্টিনেশন ম্যারেজ’‌ হিসেবে ভারতীয়দের কাছে ওই দেশের চাহিদা বাড়ছে। তাঁর মতে, ভারতীয়দের বিয়ের অনুষ্ঠান অনন্য। এর কারণ ব্যাখ্যা করে তিনি বলেন, ‘‌বেশ কয়েকদিন ধরে অনুষ্ঠান চলে। সবাই মেতে থাকেন বিয়েতে। এটা দারুণ লেগেছে।’‌‌‌

 

 

 

গ্লোবাল ট্যুরিজম সামিটের উদ্বোধন করছেন আশরাফ শিখালিয়েভ, সত্যম রায়চৌধুরী। রয়েছেন অশোক মোতায়েদ, শুভাপ্রসন্ন, 
ঝা লিইয়ু, সুবর্ণ বসু, প্রসূন মুখার্জি। হায়াত হোটেলে। শনিবার। ছবি:‌ কৌশিক সরকার‌

জনপ্রিয়

Back To Top