SIP: সীমিত সময়ের মধ্যে স্বপ্নপুরণ?‌ অর্থ যোগাবে এই পরিকল্পনা!‌

সুশান্ত সান্যাল: আপনার কী বয়স কম অথবা আপনি কী মাঝবয়সি?‌ চোখে অনেক স্বপ্ন কিন্তু সেটা বাস্তব রুপায়ণে বাধ সাধছে অর্থ সংস্থান?‌ তাহলে আর সময় অপচয় নয়।

বেছে নিন সাধ্যমত এসআইপি (SIP – Systematic Investment Plan)‌ যা একটু ঝুঁকির পরিবর্তে আপনাকে দিতে পারে একটা গুরুত্বপূর্ণ মূলধন। আসুন দেখে নি কেন এই পরিকল্পনা প্রয়োজন?‌ নতুন চাকরি জীবন শুরু হয়েছে আপনার। আর এই মুহূর্তে হাতে থাকা অর্থের অন্তত ২০% লাগিয়ে ফেলুন মিউচুয়াল ফান্ডে এই এসআইপি স্কিমের মাধ্যমে। অন্তত বিশেষজ্ঞরা তাই বলছেন। অপেক্ষাকৃত কম বয়স থেকে শুরু করলে আপনি ৫ বছরের মধ্যেই গড়ে ফেলতে পারেন এক বিরাট অঙ্কের নিজস্ব পুঁজি যা কিনা আপনার ভবিষ্যতকে সুনিশ্চিত করবে। আপনি আপনার ব্যাঙ্কের কাছে আগাম নির্দেশ দিয়ে রাখতে পারেন, যাতে প্রত্যেক মাসে বা একটি নির্দিষ্ট সময় অন্তর একটি নির্দিষ্ট পরিমাণ অর্থ এখানে জমা পরে। এই স্কিমে আপনি ঠিক করে নিন আপনার স্বপ্নপূরণের জন্য সময়কাল যা ৩ বছর, ৫ বছর বা ১০ বছরের হতে পরে। এক অর্থনৈতিক বিশেষজ্ঞ জানিয়েছেন, যে আপনি ১০ হাজার টাকা প্রতি মাসে ১৫ বছরের জন্য বিনিয়োগ করলে এসআইপি আপনাকে যেমন দিতে পারে ৫০ লক্ষ আবার ২০ বছরে সেটা হতে পারে ১ কোটি পর্যন্ত। তাই অনায়াসে আপনি ছোট ছোট বিনিয়োগের মাধ্যমে অনেক বড় একটা ফান্ড গড়ে তুলুন। তবে ঝুঁকির দিকটাও মাথায় রাখতে হবে। একটু বাজারের খোঁজ খবর নিয়ে তবেই বেছে নিন কোম্পানিকে। এই মুহূর্তে মাত্র ৫০০ টাকা দিয়ে শুরু করতে পারেন আপনি। আর অন্ততপক্ষে জমা করুন ১২ মাস। এই স্কিমে যেমন আপনি পাচ্ছেন আয়কর আইনের ৮০সি ধারার অধীনে কর ছাড়ের (কর ছাড়ের সীমা অনুযায়ী) সুবিধা। আবার এতে বিনিয়োগের ক্ষেত্রে কোন সর্বাধিক সীমাও নেই। প্রিমাচিওর এর ক্ষেত্রে যেমন পোস্ট অফিস কেটে নিতে পারে ২% পর্যন্ত। কিন্তু এসআইপি এর ক্ষেত্রে এক্সিট চার্জ লাগবে মাত্র ১% । তবে বিনিয়োগ এক্সপার্টরা বলছেন কর ছাড়ের সুবিধা ভালভাবে পেতে নিদেনপক্ষে ১ বছরের আগে প্রিমাচিওর না করাই ভাল। 
আসুন দেখে নি কতগুলি মাঝারি আর হাই রিস্ক মিউচুয়াল ফান্ড এর কি অবস্থা গত কয়েক বছরে পাওয়া তথ্য অনুযায়ী। 

                  

                  

আর এই বিনিয়োগের পূর্ব মুহূর্তে অবশ্যই একবার দেখে নেওয়া যাক বাজারের বর্তমানে বিভিন্ন স্কিমে আপনার ঝুলিতে কত ফেরত আসতে পারে তার হিসাব। তবেই সময় কালে একটু ঝুঁকি নিয়েই ফেলুন ভবিষ্যৎ এর কথা ভেবে। আর করে ফেলুন স্বপ্নপূরণ।

                        

আকর্ষণীয় খবর