আজকাল ওয়েবডেস্ক:‌ করোনা আতঙ্কে ত্রস্ত গোটা বিশ্ব। ভারতেও মারণ থাবা বসিয়েছে এই ভাইরাস। প্রতিদিনই বাড়ছে আক্রান্তের সংখ্যা। সেই সঙ্গে বাড়ছে মৃত্যুও। আর শুধু স্বাস্থ্যে নয়, করোনার প্রভাব পড়েছে দেশের অর্থনীতিতেও। গত ১০০ বছরে স্বাস্থ্য এবং অর্থনীতিতে এত বড় সঙ্কট আসেনি। এমনটাই শনিবার বলেছেন রিজার্ভ ব্যাঙ্কের গভর্নর শক্তিকান্ত দাস। দীর্ঘদিন লকডাউন থাকায় বন্ধ ছিল শিল্প–কলকারখানা। ফলে মার খেয়েছে অর্থনীতি। ক্ষুদ্র ও মাঝারি শিল্পকে গুলিকে বাঁচাতে বেশ কয়েকটি আর্থিক প্যাকেজ ঘোষণা করেছে। কিন্তু তাতেও ফল মেলেনি। আর বছরের মাঝামাঝি সময় অতিক্রান্ত হওয়ার পর মনে হচ্ছে, করোনা দুর্ভোগে হয়তো গোটা বছরই চলবে। এদিন দেশের বৃহত্তম রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাংক স্টেট ব্যাঙ্ক অব ইন্ডিয়ার সপ্তম ব্যাঙ্কিং এন্ড ইকোনমিক কনক্লেভের ভার্চুয়াল অনুষ্ঠানে এমনটাই জানান আরবিআইয়ের গভর্নর শক্তিকান্ত দাস। তিনি এদিন এসবিআইয়ের চেয়ারম্যান রজনীশ কুমারকে বলেন, ‘এ বিষয়ে কোনও দ্বিমত নেই যে করোনা ভাইরাস গোটা বিশ্বের আর্থ–সামাজিক পরিস্থিতিতে গভীর প্রভাব ফেলেছে। বিশ্বের অর্থনীতি ব্যবস্থাকে পরীক্ষার মুখে ফেলেছে এই মারণ জীবাণু। এই মহামারী আবহে রিজার্ভ ব্যাঙ্কের কাছে অর্থনৈতিক বৃদ্ধিই সবথেকে বেশি প্রাধান্য পাবে। পাশাপাশি আর্থিক স্থিতিশীলতাকেও নজর দিতে হবে। এই আর্থিক সঙ্কটের মধ্যে দেশের সব ব্যাঙ্ক ও আর্থিক প্রতিষ্ঠান যেভাবে লড়াই করছে তা প্রশংসনীয়। তারাই এই আর্থিক সঙ্কটের ফ্রন্টালাইনে রয়েছে। এই পরিস্থিতিতে রিজার্ভ ব্যাঙ্ক বেশ কিছু সাহসী পদক্ষেপ করেছে এই আর্থিক সঙ্কটকে মোকাবিলা করার জন্য।’‌ 

জনপ্রিয়

Back To Top