Savings Plan: অবসর নিয়েছেন বা নিতে চলেছেন? নির্ভরযোগ্য স্বল্প সঞ্চয়ের পরামর্শ বিশেষজ্ঞদের

সুশান্ত সান্যাল:‌ কাঁচা আনাজ সবজির দাম আকাশছোঁয়া।

তার ওপর রান্নার গাসের ছ্যাঁকা নিম্ন মধ্যবিত্ত মানুষের রাতের ঘুম যেমন কেড়ে নিয়েছে তেমনই ভাবনা বাড়ছে সমাজের বয়স্ক বা অবসর নেওয়া মানুষজনের। সঞ্চয়ের জন্য বাজারের অনেক প্রকল্প আছে কিন্তু নিশ্চিত হতে সাধারণ মানুষজনের এখনও পছন্দের তালিকায় সেই ঘুরে ফিরে আসে রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাঙ্ক বা পোস্ট অফিস। বিশেষজ্ঞ মহলের একাংশের ধারণা এই অতিমারি পরিস্থিতিতে অন্ততপক্ষে ১০% থেকে ১২% অবশ্যই লিকুইড ক্যাশ হিসেবে রাখা উচিত ব্যাঙ্কে তেমনই বাকি অংশ এমন জায়গায় রাখা উচিত যাতে মাসিক আয় একটা নির্দিষ্ট পরিমাণে আসতে পারে অপেক্ষাকৃত বেশি সুদে। সমস্যা হল নিশ্চিত জায়গা আর বেশি সুদের হার, আর এখানেই ভরসা পোস্ট অফিস। রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাঙ্কে নিশ্চিত হলেও এই মুহূর্তে সুদের হার কম পোস্ট অফিসের তুলনায়। শেষ পাওয়া পোস্টাল সার্ভেতে দেখা গেছে , ভারতে প্রায় ৩৭ কোটি মানুষের স্বল্প সঞ্চয় রয়েছে শুধুমাত্র পোস্ট অফিসে, আর তারা এর অপর অনেকটাই নির্ভরশীল। তাই আপনিও নিশ্চিত আয়ের জন্য বেছে নিতে পারেন আপনার পছন্দমতো পোস্ট অফিসের বিভিন্ন স্কিম। আসুন দেখে নেওয়া যাক বিভিন্ন স্কিমে পোস্ট অফিসের এই মুহূর্তে সুদের হার (সেপ্টেম্বর’‌২১-‌এর তথ্য অনুযায়ী)‌ কত। ১ থেকে ৩ বছরের টার্ম ডিপোজিট আপনাকে দেবে নিশ্চিত ৫.৫% হারে সুদ। ৫ বছরের এই প্রকল্পে আপনি পেতে পারেন ৬.৭% সুদ। তবে এসব স্কিমে আপনি বছরে একবারই পাবেন হাতে টাকা। সিনিয়র সিটিজেন স্কিমেও আপনি পেতে পারেন ৭%-‌এর বেশি সুদ। এছাড়াও রয়েছে মাসিক আয় প্রকল্প যেখানে আপনি নিশ্চিত ভাবে আয় করতে পারেন ৬.৫% এর বেশি সুদ। যেমন মাসিক আয় প্রকল্পে একজনের নামে আপনি রাখতে পারেন সর্বোচ্চ ৪.৫ লক্ষ টাকা আবার দু’‌জনের নামে রাখতে পারেন একত্রে ৯ লক্ষ পর্যন্ত। কিন্তু টার্ম ডিপোজিটে এর ক্ষেত্রে এর কোনও সীমা নেই। আপনার হাতের লিকুইড ক্যাশ বা কিছু উদ্বৃত্ত থাকলে আপনি অবশ্যই বেছে নিতে পারেন যে কোনও বাঙ্ককে।

আরও পড়ুন:‌ ‘‌ফিল্মস্টাররা বড় নির্বাচনে লড়েন, পুরভোট কর্মীরাই লড়বেন’‌, বিস্ফোরক দিলীপ

পছন্দের তালিকায় প্রথমে রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাংক নিশ্চয়ই থাকবে। শেষ পাওয়া তথ্য অনুযায়ী, এসব ব্যাঙ্কগুলোর এই মুহূর্তে ১ থেকে ৩ বছরের ফিক্সড ডিপোজিটে সুদ ঘোরাফেরা করছে ২.৫% থেকে ৫.২৫%-‌এর মধ্যে সাধারণের জন্য। সিনিয়র সিটিজেনদের ক্ষেত্রে অবশ্য এটা ৩.৩% থেকে ৬.২৫%-‌এর মধ্যে। বেসরকারি ব্যাঙ্কের ক্ষেত্রে আবার অ্যাক্সিস ব্যাঙ্ক দিচ্ছে ৫.৭৫% সাধারণ মানুষের জন্য আবার সিনিয়র সিটিজেনদের ক্ষেত্রে তা ৬.৫% পর্যন্ত। যদিও অ্যাক্সিস ব্যাঙ্কের এই স্কিমে আপনাকে  জমা রাখতে হবে ৫ বছরের জন্য। আবার এইচডিএফসি ব্যাঙ্ক এই স্কিমে দিচ্ছে ৫.৫% থেকে ৬.২৫% পর্যন্ত।  আরও কিছু উদ্বৃত্ত আপানার কাছে থাকলে ঝুঁকি নিতে ভুলবেন না মিউচুয়াল ফান্ডে। যা আপনাকে ১২-১৩% হারে নিশ্চিত করতে পারে রিটার্ন।

এরপরও যদি কিছুটা পরিমাণ টাকা আপনার কাছে থেকে যায় তাহলে আর একটু ঝুঁকি শেয়ারে নিয়েই ফেলুন। পরিবর্তিত পরিস্থিতিতে এই মুহূর্তে কিছু ভাল শেয়ার কিনে নিন কম দামে যা ভবিষ্যতে আপনাকে মূলধন জোগাবে বড় কোনও ঝুঁকি নিতে।

আকর্ষণীয় খবর