আজকাল ওয়েবডেস্ক: কিশোর বিয়ানির ফিউচার গ্রুপ কিনে নেওয়ার লক্ষ্যে আরও এক পা এগোল মুকেশ আম্বানির রিলায়েন্স ইন্ডাস্ট্রিজ লিমিটেড বা আরআইএল। দুই কোম্পানির মধ্যে চুক্তি স্বাক্ষরিত হয়েছে। এর ফলে কিশোর বিয়ানির তিনটি কোম্পানি— ফিউচার রিটেল, ফিউচার লাইফস্টাইল এবং ফিউচার সাপ্লাই চেন সলিউশনস্‌ এই তিনটি কোম্পানি একসঙ্গে মিশে যাবে। তারপর এই তিনটি মিলিত কোম্পানি রিলায়েন্সের আওতায় চলে আসবে। আগামী ১৫ জুলাই, আরআইএল–এর বার্ষিক সাধারণ বৈঠকের আগেই চুক্তি স্বাক্ষর সম্পূর্ণ করতে উৎসুক রিলায়েন্স। তবে এখনও আলোচনা চলছে। এবং চূড়ান্ত চুক্তি স্বাক্ষরিত হওয়ার আগে দুপক্ষই পরস্পরকে বাজিয়ে নিচ্ছে।
অ্যামাজন, ব্ল্যাকস্টোন এবং প্রেমজিইনভেস্টের মতো ফিউচার গ্রুপের সহকারী লগ্নিকারীরা এরপর রিলায়েন্সের সঙ্গে চুক্তি করতে পারে। পাইকারি বাজারে অ্যামাজন ইন্ডিয়ার প্রতিদ্বন্দ্বী হিসেবে উঠে আসছে রিলায়েন্স। মুদি সামগ্রী অনলাইন কেনাবেচার জন্য এপ্রিলেই হোয়াটস্‌অ্যাপের সঙ্গে পার্টনারশিপ করেছিল রিলায়েন্স। বিয়ানির ফিউচার গ্রুপের একটি শাখা এবছরের শুরুতে ঋণ খেলাপের জন্য তালিকায় পড়ে যায়। তারপর থেকেই পাইকারি বাজারের রাজা হিসেবে পরিচিত কিশোর বিয়ানি সুযোগ খুঁজছিলেন, কীভাবে কোম্পানিকে বাঁচানো যায় এবং ফের ঘুরে দাঁড়ানো যায়।
অ্যামাজন ফিউচার গ্রুপে বিনিয়োগ করলেও দেনা চোকাতে মুকেশ আম্বানির কোম্পানির উপরই বেশি ভরসা করছেন কিশোর বিয়ানি। সূত্রের খবর, অন্য কয়েকটি কোম্পানির সঙ্গেও কথাবার্তা চলছে ফিউচার গ্রুপের। তবে মোটামুটি পরিষ্কার, ফিউচার গ্রুপের তিনটি শাখা মিশে গিয়ে একটি কোম্পানি হয়ে যাবে এবং সেটাই রিলায়েন্স কিনে নিতে চলেছে।         
     ‌

জনপ্রিয়

Back To Top