আজকাল ওয়েবডেস্ক:‌ আর্থিক নীতির পরিকাঠামো নিয়ে অন্তর্বর্তী পর্যালোচনা চলছে। শনিবার সাংবাদিক সম্মেলনে একথা জানালেন আরবিআই–এর গভর্নর শক্তিকান্ত দাস। তিনি বললেন, গত তিন বছর ধরেই আর্থিক নীতি পরিকাঠামো বা এমপিসি নিয়ে কাজকর্ম চলছে। আপাতত আরবিআই–তেই সেটার অন্তর্বর্তী পর্যালোচনা এবং বিশ্লেষণ করা হচ্ছে। উপযুক্ত সময়ে সেটা নিয়ে সরকারের সঙ্গে আলোচনায় বসবে আরবিআই। অর্থনীতির যে  লিকুইডিটি ব্যবস্থা ঘোষণা করা হয়েছে সেখান থেকে ভালো ফলের আশা করছেন আরবিআই–এর গভর্নর। এই কারণেই এমপিসি নিয়ে অন্তর্বর্তী পর্যালোচনা চলছে বলে জানান তিনি। শক্তিকান্ত দাসের আশা, আগামী কয়েক মাসের মধ্যে ঋণ খাতে উন্নতি হবে। বাজারে অপরিশোধিত পণ্যের মূল্যের পতনের ফলে মুদ্রাস্ফীতি স্বাভাবিক হবে।
প্রসঙ্গত, গত মাসের ১২ তারিখেই কেন্দ্রীয় তথ্য অনুযায়ী, খাদ্যপণ্যের মূল্যবৃদ্ধির ফলে প্রায় ৭.‌৫৯ শতাংশ হারে বেড়ে গিয়েছিল মুদ্রাস্ফীতি। ডিসেম্বরে যেখানে মুদ্রাস্ফীতি ছিল ১৩.‌৬৩ শতাংশ, সেখানে জানুয়ারিতে তা বেড়ে দাঁড়ায় ১৪.‌১২ শতাংশে। আর্থিক বৃদ্ধির হার কম হলেও রেপো রেটের হার অপরিবর্তিত রেখে ফেব্রুয়ারিতে ৫.‌১৫ শতাংশই রাখল আরবিআই। মুদ্রাস্ফীতি প্রকল্পেরও পুনর্বিচার করা হয়েছে। কেন্দ্রীয় ব্যাঙ্কের আশা, নতুন ২০২০–২১ অর্থবর্ষের প্রথমার্ধে এই হার ৫–৫.‌৪ শতাংশের মধ্যেই থাকবে।
ছবি:‌ এএনআই       

জনপ্রিয়

Back To Top