আজকাল ওয়েবডেস্ক:‌ ‌‌জিডিপি–র ঐতিহাসিক পতনের ধাক্কায় সামলে উঠতে না উঠতে আরও বড় আশঙ্কার খবর শুনিয়ে দিল গ্লোবাল রেটিং সংস্থা মুডিজ। বলল, চলতি অর্থ বর্ষে দেশের মোট অভ্যন্তরীণ উৎপাদন ১১.৫% সঙ্কুচিত হবে। তবে শুধু মুডিজ নয়, বেশ কয়েকটি মূল্যায়ণকারী সংস্থা ১৫% সঙ্কোচনের পূর্বাভাস দিচ্ছে। তাদের বক্তব্য, করোনা বাগে আনতে গিয়ে আঞ্চলিক লকডাউনের জেরেই মার খাচ্ছে উৎপাদন!‌ তার ওপর চাহিদা ঘাটতি এবং ক্রমবর্ধমান বেকারত্ব অর্থনীতির রথের চাকার গতি আরও শ্লথ করবে। তবে আগামী অর্থ বর্ষে অর্থনীতি ঘুরে দাঁড়াবে, বলছে মুডিজ। তবে কত দ্রুত পুনরুদ্ধার হবে, তা নিয়ে এখনও বিস্তর তর্ক–বিতর্ক চলছে। 
সংস্থার দাবি, মোট অভ্যন্তরীণ উৎপাদনের নিরিখে ২০২০–২১ বর্ষে সরকারের ঋণের বোঝা ৯০.‌১% ছুঁয়ে ফেলবে। যা কিনা গত অর্থ বর্ষে ৭২.‌২%–এ এসে ঠেকেছিল। রিপোর্ট বলছে, দুর্বল অর্থ ব্যবস্থা, বাড়তে থাকা ঋণের বোঝা, শ্লথ আর্থিক বৃদ্ধির জেরে সরকারের ভাঁড়ারেও টান পড়েছে। এই সময়ে ঝুঁকি এড়িয়েই সমস্যার মোকাবিলা করা ভাল। নইলে রাজকোষে চাপ পড়বে, যা পরবর্তীকালে অর্থনীতির ক্ষতকে আরও গভীর করে তুলতে পারে। 
গত মাসের রিপোর্টেই মুডিজ বলেছিল, জি–২০ দেশগুলির মধ্যে শুধু চীন, ভারত এবং ইন্দোনেশিয়ার অর্থনীতিতেই দ্রুত পুনরুদ্ধার লক্ষ্য করা যাবে চলতি অর্থ বর্ষের দ্বিতীয় ত্রৈমাসিকে। কিন্তু সেবারও মুডিজ বলেছিল, কত দ্রুত আর্থিক বৃদ্ধি ঘটবে, তা সম্পূর্ণ নির্ভর করছে, কত দ্রুত সংক্রমণ কমিয়ে আনা যাচ্ছে। তবে আগামী অর্থ বর্ষে ১০.‌৬% বাড়বে দেশের জিডিপি, জানাচ্ছে মুডিজ।     

জনপ্রিয়

Back To Top