আজকাল ওয়েবডেস্ক:‌ অর্থনীতি বেহাল, সেনসেক্স নড়বড়ে, শেয়ারবাজারে ধস এবং নিফটি তলানিতে। এবার উঠল না পাইকারি মূল্যবৃদ্ধির হারও। উলটে ফের বেড়ে গেল পাইকারি মূল্যবৃদ্ধির হার। ডিসেম্বরে ছিল ২.৫৯ শতাংশ, যা ০.৫১ শতাংশ বেড়ে জানুয়ারিতে দাঁড়িয়েছে ৩.১ শতাংশে। গত ৮ মাসে পাইকারি মূল্যবৃদ্ধির হার সর্বোচ্চ হয়ে দাঁড়াল। যা এককথায় উদ্বেগেরও।
এভাবে পাইকারির মূল্যবৃদ্ধি হলে জিনিপত্রের দাম বাড়তে থাকবে। আর জিনিসপত্রের দাম বাড়লে তা মধ্যবিত্তের ক্রয় ক্ষমতার বাইরে চলে যাবে। দেখা যাচ্ছে, ২০১৯ সালের এপ্রিল মাসে পাইকারি মূল্যবৃদ্ধি পৌঁছয় ৩.১ শতাংশ। যেখানে সেই বছর জানুয়ারি মাসে সেই হার ছিল ২.৭৬ শতাংশ। ডিসেম্বর মাসের তুলনায় জানুয়ারি মাসে খাদ্য পণ্যের দাম এক শতাংশ কমে। ফল, সবজি, চা, গোমাংস, শূকরের মাংসের দাম কমেছে। দাম বেড়েছে সোয়াবিন, রাবার প্রভৃতির। এটা সরকারের দেওয়া তথ্য সূত্রেই খবর।
খুচরো মূলবৃদ্ধিও জানুয়ারি মাসে ৭.৫৯ শতাংশ বৃদ্ধি পেয়েছে। ২০১৪ সালের মে মাসের পর এটাই রেকর্ড বৃদ্ধি। সে সময় ছিল ৮.৩৩ শতাংশ। খুচরো মূল্যবৃদ্ধি নিয়ন্ত্রণে না আনতে পেরে রেপো রেট অপরিবর্তিত রাখতে বাধ্য হয় রিজার্ভ ব্যাঙ্ক। মুদ্রাস্ফীতি ৬ শতাংশে বেঁধে রাখার লক্ষ্যমাত্রা নিয়ে ছিল আরবিআই। কেন্দ্রীয় বাণিজ্য এবং শিল্প মন্ত্রকের এই তথ্য প্রকাশ্যে আসতেই অস্বস্তিতে পড়েছে মোদি সরকার। ‌

জনপ্রিয়

Back To Top