BGBS: রাজ্যের অর্থনীতি চাঙ্গা হচ্ছে

হর্ষবর্ধন নেওটিয়া
চেয়ারম্যান, অম্বুজা নেওটিয়া গ্রুপ

 

 

বেঙ্গল গ্লোবাল বিজনেস সামিট বা বিজিবিএস।

পশ্চিমবঙ্গ সরকার আয়োজিত রাজ্যের বার্ষিক শিল্প–বাণিজ্য সম্মেলন। এটি যথার্থই একটি সময়োপযোগী উদ্যোগ, যার মাধ্যমে রাজ্যের শিল্প–বাণিজ্য বাড়তি মাত্রা পায় সর্বস্তরে। বিজিবিএস–এ বিভিন্ন রাজ্য থেকে শিল্পপতিরা আসেন। এ রাজ্যে শিল্প সম্ভাবনার দিকগুলি খতিয়ে দেখা হয় উভয় পক্ষ থেকেই। বিদেশ থেকেও আসেন শিল্পপতিরা। যাতে খুলে যায় শিল্পের নতুন নতুন দিক।
গত বেশ কয়েক বছর ধরে আমরা দেখছি, এমন শিল্প–বাণিজ্য সম্মেলন হলে সরকার ও শিল্প–বাণিজ্য প্রতিনিধিদের সম্মিলিত উদ্যোগে যে শুধু শিল্প–বাণিজ্যে সচেতনতাই বাড়ে তা নয়, সংশ্লিষ্ট ক্ষেত্রে সঠিক সিদ্ধান্ত নেওয়ার ক্ষেত্রেও তা অনুকূল হয়। আমার ধারণা, এই বছরেও ১৪–১৫টি দেশ বিজিবিএস–এ অংশ নেবে ও বিভিন্ন সমঝোতা পত্র স্বাক্ষরিত হবে।
গত কয়েক বছরে কলকাতা–‌সহ রাজ্যের বিভিন্ন অংশে উল্লেখ করার মতো পরিকাঠামোগত উন্নয়ন হয়েছে। জাতীয় গড়ের তুলনায় এ রাজ্যের উৎপাদন বেড়েছে, যা প্রমাণ করে রাজ্যের অর্থনীতি চাঙ্গা হচ্ছে ও ঘুরে দাঁড়াচ্ছে। অবশ্য একথা সত্যি যে, কিছু এলাকায় অনেক কাজ বাকি। রাজ্যে মাথাপিছু আয় বাড়াতে আমাদের উন্নয়নে আরও গতি আনতে হবে। তবে রাজ্য সরকার ই–গভর্ন্যান্স এবং ডিজিটাইজেশনে যথার্থ গুরুত্ব দিয়েছে। এতে পদ্ধতিগুলো সরল হয়েছে, সরকারি অফিসে গিয়ে সময় ব্যয়ের প্রশ্ন কমিয়েই।
উন্নয়নের আরেকটি দিক পরিকাঠামো। কলকাতা মহানগরী উল্লেখযোগ্যভাবে সুন্দর হয়েছে। কনভেনশন সেন্টার, প্রদর্শনী প্রাঙ্গণ ও প্রচুর হোটেলের মতো সামাজিক, সাংস্কৃতিক, বাণিজ্যিক সুযোগ তৈরি হয়েছে। যার ফলে শহরে সম্ভব হচ্ছে বহু ইভেন্ট ও সম্মেলনের আয়োজন। অতিমারি দুটো বছর আমাদের থমকে দিলেও, আমরা কোভিড মোকাবিলা করে ফের উন্নয়নে শামিল হয়েছি। আমার বিশ্বাস, দেশের, বিশেষ করে পশ্চিমবঙ্গের চাঙ্গা অর্থনীতি আবার স্বমহিমায় ফিরে আসবে।‌‌‌‌‌‌

আরও পড়ুন:‌ শিল্প–সম্ভাবনার গন্তব্যস্থল পশ্চিমবঙ্গ

আকর্ষণীয় খবর