আজকাল ওয়েবডেস্ক:‌ রাজকোষ ঘাটতি, অর্থনীতির স্লথগতি সামাল দিতে ফের রিজার্ভ ব্যাঙ্কের ভাঁড়াড়ে নজর কেন্দ্রের। এবার আর সোজা টাকা চেয়ে বসা নয়। কায়দা করে বন্ড বেচে আরবিআই–এর থেকে নগদ তুলতে পারে কেন্দ্র। সম্প্রতি ইন্দোনেশিয়া সরকার যা করেছে। সরকারি ঋণপত্র বেচে শীর্ষ ব্যাঙ্কের থেকে ৪ হাজার কোটি মার্কিন ডলার তুলেছে তারা। মোদি সরকারও সেই পথেই হাঁটতে পারে বলে জানালেন কেন্দ্রের এক উচ্চপদস্থ আধিকারিক। করোনা সংক্রমণ আর লকডাউনে বহুদিন ধরেই ধুঁকছে অর্থনীতি। রথের চাকা ঘোরাতে কেন্দ্রের ব্যয় বাড়লেও আয় বাড়েনি। ফলত ভাঁড়াড়ে টান, রাজকোষ ঘাটতি। অতিমারীর কবল থেকে ঘুরে দাঁড়াতে বারবার ত্রাণের আর্জি জানাচ্ছে শিল্প সংস্থাগুলো। তাই রিজার্ভ ব্যাঙ্কের নগদ অর্থেই সমস্যার সুরাহা হবে বলে মনে করছে ওয়াকিবহাল মহল। 
আরবিআই–এর বাড়তি ভাঁড়াড়ে আগেও হাত ঢুকিয়েছে কেন্দ্র। গত বছরেই জালান কমিটির সুপারিশ মেনে কেন্দ্রের হাতে ১.‌৭৬ লক্ষ কোটি টাকা তুলে দিয়েছে রিজার্ভ ব্যাঙ্ক। তা সত্ত্বেও পরিস্থিতি বদলায়নি। ঝিমিয়েই ছিল অর্থনীতি। বরং আশঙ্কা তৈরি হয়েছিল, শীর্ষ ব্যাঙ্কের উদ্বৃত্তে ভাগ বসালে টোল খেতে পারে তাদের ঝুঁকি সামাল দেওয়ার ক্ষমতা। এই বাড়তি তহবিল থেকেই আন্তর্জাতিক মুদ্রাবাজারে সঙ্কট কিংবা ঘরোয়া ব্যাঙ্কের অর্থনৈতিক সঙ্কট দূর করে আরবিআই। 
ব্যাঙ্ক অফ বরোদার প্রধান অর্থনীতিবিদ সমীর নারাঙ বলেন, ‘‌করোনা আবহে অর্থনৈতিক মন্দা সামাল দিতে বিশ্বের অধিকাংশ কেন্দ্রীয় ব্যাঙ্ক তাদের সরকারকে সাহায্য করছে। আরবিআই–ও যদি তাই করে, এতে ক্ষতি নেই। তবে বাজার মারফত নগদ ঢালা গেলে সেক্ষেত্রে আরও ভাল হবে। বিনিয়োগকারীদের কাছে বার্তা যাবে, বাজার ফের বড় হচ্ছে, প্রসারিত হচ্ছে।’‌ 

জনপ্রিয়

Back To Top