আজকাল ওয়েবডেস্ক:‌ রেলযাত্রীদের চক্ষু চড়কগাছ। দেশের প্রতিটি স্টেশনে এই বছরের মধ্যেই বিনামূল্যে ওয়াইফাই পরিষেবা বা ‘‌স্টেশন প্রকল্প’‌ বন্ধ করতে চলেছে গুগল্‌। গত পাঁচ বছর ধরে দেশের ৪০০টি স্টেশনে এই পরিষেবা দিয়ে আসছে গুগল্‌। সোমবারই নিজেদের ব্লগে গুগল্ পোস্ট করে বলেছে যে পাঁচ বছর আগে যা শুরু হয়েছিল তার থেকে এখন অনলাইন হওয়া অনেকটাই সস্তা হয়ে গিয়েছে। ভারতে গুগল্‌–এর পেমেন্টস্‌ অ্যান্ড নেক্সট বিলিয়ন ইউজার্স শাখার ভিপি সিজার সেনগুপ্ত বললেন, ‘‌আজকের দিনে সারা বিশ্বের মধ্যে বিশেষত ভারতেই প্রতি জিবি–তে সব থেকে কম টাকায় মোবাইল ডেটা পাওয়া যায়। ২০১৯–এ ট্রাইয়ের নিয়মানুযায়ী, গত পাঁচ বছরে মোবাইল ডেটার মূল্য ৯৫ শতাংশ কমেছে।’‌
২০১৫–য় ভারতীয় রেল এবং রেলটেলের সঙ্গে মিলে স্টেশনগুলিতে বিনামূল্যে ওয়াইফাই পরিষেবা দেওয়া শুরু করেছিল। দেশের ৪০০টির কিছু বেশি ব্যস্ততম স্টেশনে এই পরিষেবা দেওয়ার চুক্তি হয়েছিল গুগল্‌–এর সঙ্গে রেলের। কিন্তু ২০১৮–র জুনে সেই সংখ্যা ছাড়িয়ে গিয়েছে। চুক্তি অনুযায়ী ফাইবার সংযোগ দেবে রেল এবং সফ্‌টওয়্যার চালানো এবং অ্যাকসেস পয়েন্ট দেখভালের দায়িত্ব থাকবে গুগল্‌–এর হাতে। কিন্তু ইতিমধ্যে টাটা ট্রাস্ট পাওয়ার গ্রিড কর্পোরেশন সহ অন্যান্য আরও কিছু অংশীদারদের সঙ্গে নিয়ে রেল নিজে থেকেই বিনামূল্যে ওয়াইফাই পরিষেবা দেওয়ায় বর্তমানে ৫৫০০টি স্টেশনে এই সুবিধা পান যাত্রীরা। গত সপ্তাহেই রেলমন্ত্রী পীযূষ গোয়েল বলেছিলেন, যাঁরা স্টেশনের কাছাকাছি থাকেন, সেই সব বাসিন্দারাও যাতে রেলের বিনামূল্যে ওয়াইফাই–এর সুবিধা পান সেকথা চিন্তা করছে রেল।
বিএসএনএল–এর সঙ্গে মিলে পুনে এবং বেঙ্গালুরুতে ‘‌স্টেশন প্রকল্প’ চালাচ্ছে গুগল্‌। ভারতের পর এই প্রকল্প তারা শুরু করেছে মেক্সিকো, ব্রাজিল, দক্ষিণ আফ্রিকা এবং ইন্দোনেশিয়ায়। সেই দেশগুলিও এখন নিজেদের উদ্যোগেই স্টেশনগুলিতে বিনামূল্যে ওয়াইফাই দিচ্ছে। তাই সিজার সেনগুপ্ত জানালেন, রাষ্ট্রগুলি নিজে থেকেই এই পরিষেবা দিতে শুরু করায় তাঁদের পক্ষে ‘‌স্টেশন প্রকল্প’‌ আর চালিয়ে যাওয়া কষ্টকর হয়ে যাচ্ছে। সেকারণেই এই সিদ্ধান্ত।        

জনপ্রিয়

Back To Top