আদানি গ্রুপের শেয়ারে বিদেশি বিনিয়োগ কার? তথ্য প্রকাশের দাবি কংগ্রেসের

আজকাল ওয়েবডেস্ক: আদানি গ্রুপের তিন সংস্থায় বিনিয়োগে বড়সড় অনিয়মের অভিযোগ উঠল। প্রধানমন্ত্রী ঘনিষ্ঠ শিল্পপতি বলে পরিচিত গৌতম আদানির সংস্থার বিরুদ্ধে মাঠে নামল কংগ্রেস। মরিশাস ভিত্তিক বিদেশি তহবিল এই গোষ্ঠীর সংস্থায় যে বিনিয়োগ হয়েছে ও যার ডিম্যাট অ্যাকাউন্টে রিপোর্ট করা হয়েছে, তার সমস্ত তথ্য প্রকাশের দাবি জানাল কংগ্রেস। 

কংগ্রেসের মুখপাত্র গৌরব বলল বলেন, এনএসডিএল এবং সেবি এই তহবিলগুলির প্রকৃতি, চূড়ান্ত মালিকানা, তাদের তদন্তের ফল, এই ফান্ডগুলি কী কী জামানত রাখে, অ্যাকাউন্ট ফ্রিজ করার কারণ প্রকাশ করুক। এরই পাশাপাশি লগ্নিকারী এবং বিশ্লেষকদের একাংশ ক্ষোভ উগরে দিয়েছেন। কেন এ বিষয়ে স্পষ্ট করে বিবৃতি জারি করা হচ্ছে না প্রশ্ন তুলেছেন তারা। বিজেপির রাজ্যসভার সংসদ সুব্রহ্মণ্যম স্বামীও এই দাবিতে সরব হয়েছেন।

তিন বিদেশি লগ্নিকারী সংস্থা আলবালা, ক্রেস্টা ও এপিএমএস-এর অ্যাকাউন্ট ফ্রিজ করার পরে সোমবার ধস নেমেছিল আদানি গোষ্ঠীর শেয়ার দরে। গৌতম আদানি মালিকানাধীন এই সংস্থায় তাদের মোট তহবিলের ৯৫ শতাংশ বেশি অর্থ এই তিন বিদেশি সংস্থা ঢেলেছিল। যা ৪৩ হাজার ৫০০ কোটি টাকারও বেশি। এদিকে সেবির গাইডলাইন অনুযায়ী কোনও বিদেশি সংস্থা ১০ শতাংশের বেশি ইক্যুইটি শেয়ার কিনতে পারে না। সাধারণত ঝুঁকি কম নিতে এই ধরনের বিদেশি সংস্থাগুলি বাজারে ছড়িয়ে-ছিটিয়ে বিনিয়োগ করে।এদিকে আদানি গোষ্ঠীর দাবি ছিল, লগ্নিকারী সংস্থাগুলোর অ্যাকাউন্ট কোনওভাবে ফ্রিজ করা হয়নি। এ ঘটনার পরই আদানি গোষ্ঠীর ৪ সংস্থার শেয়ারের দামে রেকর্ড পতন হয়। একদিনে প্রায় ৫৫ হাজার কোটি টাকার সম্পদ কমে যায় আদানি গোষ্ঠীর। তবে এই নিয়ে উঠে পড়ে লেগেছে কংগ্রেস। কীভাবে এইভাবে অনিয়ম হতে পারে উঠছে প্রশ্ন ।