আজকালের প্রতিবেদন: প্রথাগত ক্লাসরুম শিক্ষার পাশাপাশি যুগের প্রয়োজনে সামগ্রিক সমস্ত বিষয়েই পড়ুয়াদের শিক্ষিত করে তুলতে হবে। যার মধ্যে থাকবে সোশ্যাল মিডিয়া, অনলাইন মিডিয়াও। এর ফলে তারা সব দিক দিয়েই উপযুক্ত হয়ে উঠতে পারবে। দ্য বেঙ্গল চেম্বার অফ কমার্স–এর বার্ষিক শিক্ষা সংক্রান্ত আলোচনাসভায় উঠে এল এই তথ্য। আয়োজক প্রতিষ্ঠানের শিক্ষা সংক্রান্ত বিভাগ। ‘‌২১ফার্স্ট সেঞ্চুরি রিয়্যালিটিজ অ্যান্ড লার্নিং–ক্রিয়েটিং মোর পলিম্যাথস’‌ শীর্ষক এই আলোচনাসভায় বিষয় ছিল ‘‌দ্য ফিউচার অফ এডুকেশন ইজ অ্যাবাউট ব্লেন্ডেন্ড লার্নিং’‌ বা আগামী দিনের শিক্ষা হল সামগ্রিক শিক্ষা। প্রতিষ্ঠানকে ধন্যবাদ জানিয়ে আলোচনাসভার প্রধান অতিথি রাজ্যপাল কেশরীনাথ ত্রিপাঠী বলেন, ‘‌শিক্ষাকে যদি সামান্য কয়েকটি দিকে আটকে রাখা হয়, তবে সমাজের সম্পূর্ণ বিকাশ হবে না। সমাজের পরিবর্তনের সঙ্গে শিক্ষারও পরিবর্তন প্রয়োজন।’‌  রাজ্যের শিল্প ও বাণিজ্য দপ্তরের অতিরিক্ত মুখ্য সচিব আলাপন বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন, ‘‌বিভিন্ন বিষয়ে জ্ঞান এবং সংস্কৃতি ও নান্দনিক বোধ হল গুরুত্বপূর্ণ বিষয়।’‌ দ্য বেঙ্গল চেম্বারের শিক্ষা বিভাগের কো–চেয়ারপার্সন এবং সিস্টার নিবেদিতা ইউনিভার্সিটির আচার্য এবং টেকনো ইন্ডিয়া গ্রুপের কো–ফাউন্ডার এবং ম্যানেজিং ডিরেক্টর সত্যম রায়চৌধুরী বলেন, ‘‌একাধিক বিষয়ে মানবমনের দক্ষতা বাড়ানো–সহ সমস্যার মুখোমুখি হয়ে নতুন কোনও সমাধানসূত্র বের করা হল শিক্ষার প্রকৃত লক্ষ্য। পড়ুয়াদের শিক্ষা দেওয়ার সময় শিক্ষকদের এটা খেয়াল রাখতে হবে, যাতে তারা শুধুমাত্র প্রযুক্তিনির্ভর না হয়ে উদ্ভাবক এবং কিছু সৃষ্টি করার ক্ষমতা অর্জন করতে পারে।’‌ প্রতিষ্ঠানের শিক্ষা সংক্রান্ত বিভাগের চেয়ারপার্সন এবং ইন্টারন্যাশনাল ইনস্টিটিউট অফ হোটেল ম্যানেজমেন্টের মুখ্য পরামর্শদাতা ড.‌ সুবর্ণ বসুও জানিয়েছেন, নতুন যুগের শিক্ষার লক্ষ্য হওয়া উচিত নানা বিষয়কে একত্রিত করে শিক্ষা দেওয়া যা ভবিষ্যতে পেশার প্রয়োজনে কাজে লাগে। ম্যাকাউটের উপাচার্য অধ্যাপক সৈকত মৈত্র জানিয়েছেন, শিক্ষাকে এখন এমনভাবে তৈরি করা উচিত, যাতে কোনও বিষয় বাদ না পড়ে থাকে। ‌বক্তব্য পেশ করেছেন প্রতিষ্ঠানের শিক্ষা সংক্রান্ত বিভাগের ভাইস চেয়ারম্যান এবং জেআইএস গ্রুপের ডিরেক্টর সিমারপ্রীত সিং। বিশিষ্ট লেখক রাসকিন বন্ড এই সভায় বক্তব্য পেশ করেন। ছিলেন আইআইটি খড়্গপুরের প্রাক্তন অধ্যাপক অজয়কুমার রায়, শ্রী শিক্ষায়তন স্কুলের সেক্রেটারি জেনারেল ব্রততী ভট্টাচার্য, সিস্টার নিবেদিতা ইউনিভার্সিটির উপাচার্য অশোকরঞ্জন ঠাকুর প্রমুখ। আইআইসিপি’‌র ভাইস চেয়ারম্যান ড.‌ সুধা কাউল এবং বিশিষ্ট নৃত্যশিল্পী অলকানন্দা রায়কে জীবনকৃতি সম্মান দেওয়া হয়েছে।

‌প্রদীপ জ্বালিয়ে অনুষ্ঠানের সূচনা করছেন রাজ্যপাল কেশরীনাথ ত্রিপাঠী। আছেন শিল্প ও বাণিজ্য দপ্তরের অতিরিক্ত মুখ্য সচিব আলাপন বন্দ্যোপাধ্যায়, সিস্টার নিবেদিতা ইউনিভার্সিটির আচার্য সত্যম রায়চৌধুরী ও অন্যরা। ছবি:‌ আজকাল‌ ‌‌‌

জনপ্রিয়

Back To Top