আজকালের প্রতিবেদন: বিশ্ব বঙ্গ বাণিজ্য সম্মেলনের আগে তথ্যপ্রযুক্তি শিল্পে নয়া উদ্যোগ। চাকরি প্রার্থীদের যাবতীয় তথ্য মিলতে পারে এক জানলা থেকেই। খুব সহজে যাচাই করা যাবে তাদের নথিপত্র। এমনই দাবি করেছে ক্লিকচেন নামে এক তথ্যপ্রযুক্তি সংস্থা। সোমবার থেকে তারা অ্যাডামাস বিশ্ববিদ্যালয় এবং অ্যাডামাস ইন্টারন্যাশনাল স্কুলের সঙ্গে কাজ শুরু করল। তৈরি হয়েছে ট্যালেন্টচেন। পরে ধাপে ধাপে এই তালিকায় যোগ হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে জমি, ব্যাঙ্ক–সহ আরও বিভিন্ন ক্ষেত্রের তথ্য। সব তথ্য থাকবে নিরাপদ, আশ্বাস তাদের। বিশ্ব বঙ্গ বাণিজ্য সম্মেলনে ক্লিকচেন নিজেদের প্রযুক্তি নিয়ে হাজির হবে। এদিন কলকাতা প্রেস ক্লাবে সাংবাদিক বৈঠকে ট্যালেন্টচেন–এ ঘোষণা করা হয়। ছিলেন অ্যাডামাস ডিজিটালের সিইও সমিত রায়, রাইস গ্রুপের রাজর্ষি ঘোষ, ক্লিকচেনের প্রতিষ্ঠাতা রঙ্গিন লাহিড়ী, সহ–প্রতিষ্ঠাতা অয়ন হাজরা। নয়া এই উদ্যোগের ফলে যে কোনও প্রার্থীর শিক্ষার যোগ্যতা, পরীক্ষার ফলাফলের তথ্য জানা যাবে। জাল শংসাপত্র ব্যবহার করে যদি কেউ কোনও পেশায় যুক্ত থাকেন তা ধরে ফেলা যাবে সহজে। এদিন অয়নবাবু জানান, ব্লকচেন প্রযুক্তির এক নতুন দিক। এর সাহায্যে অনেক তথ্য জমা করে রাখা যায়। তবে সেগুলি পুরোপুরি নিরাপদ। যে কোনও প্রতিষ্ঠান সেই তথ্য দেখতে পারবে। তবে যাঁর ব্যাপারে জানতে চান তাঁর সম্মতি নিতে হবে। এই প্রযু্ক্তি ব্যবহার করে নিয়োগকারী সংস্থা খুব সহজে নিজেদের পছন্দের প্রার্থী খুঁজে নিতে পারবেন। যেমন কোনও সংস্থা চাইছে নির্দিষ্ট কোনও প্রতিষ্ঠান থেকে নির্দিষ্ট কোনও বিষয় নিয়ে পড়াশোনা করেছে এমন প্রার্থী চাই। সহজেই তা মিলবে। পাশাপাশি তাঁদের শংসাপত্র যাচাইয়ের কাজও হয়ে যাবে নিমেষে। নিয়োগ প্রক্রিয়া আরও স্বচ্ছ হবে। তিনি জানান, হিডকোর সঙ্গে একদফা কথা হয়েছে। তারা আগ্রহ দেখিয়েছে। তিনি বলেন, এর ফলে যে কোনও শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান নিজেদের এখনকার এবং প্রাক্তন পড়ুয়াদের খবরাখবর রাখতে পারবেন। তাঁরা কোথায় কাজ করছেন জানা যাবে সহজে। তবে তার আগে সেই প্রতিষ্ঠানকে নিজেদের নাম নথিভুক্ত করতে হবে। ‌

জনপ্রিয়

Back To Top