আজকালের প্রতিবেদন: বন্ধন গ্রাহকদের কাছে সুখবর। পুজোর আগেই বাজারে ক্রেডিট কার্ড আনল বন্ধন ব্যাঙ্ক। স্ট্যান্ডার্ড চার্টার্ডের সঙ্গে গঁাটছড়া বেঁধে এই কার্ড আনল তারা। শুক্রবার কলকাতার একটি হোটেলে ব্যাঙ্কের চতুর্থ বর্ষপূর্তিতে এই কার্ডের আনুষ্ঠানিক প্রকাশ করলেন বন্ধন ব্যাঙ্কের ম্যানেজিং ডিরেক্টর এবং চিফ এগজিকিউটিভ অফিসার চন্দ্রশেখর ঘোষ এবং স্ট্যান্ডার্ড চার্টার্ড ব্যাঙ্কের চিফ এগজিকিউটিভ অফিসার জারিন দারুওয়ালা। তিন রকমের এই কার্ড ‘‌ওয়ান’‌, ‘‌প্লাস’‌ এবং ‘‌এক্সক্লুসিভ’‌ বিদেশেও ব্যবহার করা যাবে। সেইসঙ্গে থাকছে কার্ড ব্যবহারে খাওয়া, সিনেমার টিকিট, সুপারমার্কেটে ব্যবহারের ক্ষেত্রে বোনাসের সুবিধা। থাকছে বিমানের টিকিট, হোটেলে ছাড়ের সুযোগ। 
এদিন চন্দ্রশেখর ঘোষ বলেন, ‘গত দেড় বছর ধরে এই পরিকল্পনা করা হচ্ছিল। কারণ, অনেকদিন ধরেই আমাদের গ্রাহকরা এই কার্ড চাইছিলেন। আমাদের ১ হাজার শাখার গ্রাহকরা এই সুবিধা পাবেন।’‌ উল্লেখযোগ্য, কার্ড ব্যবহারকারীরা বন্ধনের হলেও ‘‌লোন কল’‌ নেবে স্ট্যান্ডার্ড চার্টার্ড। বন্ধন ছাড়া অন্য কোনও ব্যাঙ্কের গ্রাহক এই কার্ড ব্যবহার করতে পারবেন না। জারিন দারুওয়ালা জানিয়েছেন, এই প্রথম কোনও ব্যাঙ্কের সঙ্গে একসঙ্গে ক্রেডিট কার্ড করা হচ্ছে। বন্ধন গত চার বছরে উল্লেখযোগ্যভাবে এগিয়ে গেছে। 
কীভাবে দেওয়া হবে এই কার্ড?‌ চন্দ্রশেখর জানিয়েছেন, গ্রাহকের লেনদেনের অঙ্ক দেখেই কাকে কী কার্ড দেওয়া হবে সেটি ঠিক করা হবে।  এর জন্যই কার্ডগুলিকে তিনটি ভাগে ভাগ করা হয়েছে।  কার্ড ব্যবহার করার পর ৫২ দিনের মধ্যে টাকা শোধ করলে কোনও সুদ দিতে লাগবে না। মাইক্রো ফাইনান্সের সঙ্গে যুক্ত গ্রাহকরা এই কার্ড ব্যবহার করতে পারবেন কি না তা জানতে চাওয়া হলে তিনি বলেন, ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্টের লেনদেনের ওপর ঠিক করা হবে। 
সংস্থার এক আধিকারিক জানিয়েছেন, ওয়ান ব্যবহারের জন্য বাৎসরিক ফি ২৯৯ টাকা। ৬০ হাজার টাকার লেনদেন হলে তবে ফি–‌‌তে ছাড় থাকবে। প্লাসের ক্ষেত্রে ফি ৬৯৯ টাকা। এতে ছাড় পেতে হলে ৯০ হাজার টাকার লেনদেন করতে হবে এবং এক্সক্লুসিভের ২৯৯৯ টাকার ফি–‌‌তে ছাড় পেতে গেলে করতে হবে ৪ লক্ষ টাকার লেনদেন।‌‌

কার্ডের নমুনা হাতে বন্ধন ব্যাঙ্কের এমডি এবং সিইও চন্দ্রশেখর ঘোষ, স্ট্যান্ডার্ড চার্টার্ড ব্যাঙ্কের সিইও জারিন দারুওয়ালা। কলকাতায়। ছবি:‌ আজকাল

জনপ্রিয়

Back To Top