আজকালের প্রতিবেদন: দেশের অর্থনীতি সচল রাখতে অর্থ সরবরাহ যথাযথ রাখা জরুরি। কারণ শরীরে রক্তের মতো অর্থনীতিতে টাকার উপযুক্ত জোগান প্রয়োজন। এমনটাই মনে করেন বন্ধন ব্যাঙ্কের এমডি কাম সিইও চন্দ্রশেখর ঘোষ। বৃহস্পতিবার কলকাতায় ১১তম ‘আইসিসি ব্যাঙ্কিং সামিট ২০১৯’-এ অংশ নিয়ে ব্যাঙ্কিং বিশেষজ্ঞরা অনেকেই মন্তব্য করলেন, বড় শিল্পে বিনিয়োগের থেকে ক্ষুদ্র শিল্পে বিনিয়োগ অনেক বেশি কম ঝুঁকিপূর্ণ। দেশের অর্থনীতির উন্নয়নের স্বার্থেই ক্ষুদ্র ও মাঝারি শিল্পের উন্নয়নে ব্যাঙ্কগুলিকে আরও ইতিবাচক ভূমিকা নেওয়ার ওপরও গুরুত্ব আরোপ করা হয়। ইন্ডিয়ান চেম্বার অফ কমার্স অন্যবারের মতো এবারও আয়োজন করেছিল ব্যাঙ্কিং সামিটের। এবারের থিম ছিল, ‘ইন্ডিয়ান ব্যাঙ্কিং: ফোকাস লিকিউডিটি: ফোকাস এমএসএমই’। সামিটে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বন্ধন ব্যাঙ্কের এমডি তথা সিইও। চন্দ্রশেখর ঘোষ ছাড়াও উপস্থিত ছিলেন আইসিসি-র অতনু সেন, রাজীব সিং, প্রদীপ সুরেখা, ব্যাঙ্ক অফ ইন্ডিয়ার ডিরেক্টর ডি সরকার, রিসার্জেন্ট ইন্ডিয়ার এমডি জ্যোতিপ্রকাশ গাড়িয়া, এসবিআইয়ের সিজিএম রঞ্জনকুমার মিশ্র প্রমুখ। দেশের বর্তমান আর্থিক পরিস্থিতিতে অনেকেই উদ্বেগ প্রকাশ করেন। সেইসঙ্গে ঋণ প্রদানের ক্ষেত্রে গ্রাহকদের মতামতকেও গুরুত্ব দেওয়ার কথা বলা হয়। বলা হয়, ব্যাঙ্কে টাকা জমার পরিমাণ সন্তোষজনক হলেও ঋণদানের ক্ষেত্রে এখনও ঘাটতি রয়েছে। ঋণ গ্রহীতাদের প্রতি ব্যাঙ্কের আস্থাবৃদ্ধিকেও গুরুত্ব দেন ব্যাঙ্কিং বিশেষজ্ঞরা। সেইসঙ্গে ক্ষুদ্র ও মাঝারি শিল্পের ঋণ পরিশোধের হার যে বেশি সেটাও অনেকের কথাতেই উঠে আসে।

জনপ্রিয়

Back To Top