বিটলস মানে এক উতল হাওয়া, বিটলস মানে এক আলোড়ন, বিটলস মানে দুনিয়া বদলে দেওয়া চার মুখ— তারুণ্যের ঝড় তোলা জন লেনন, পল ম্যাকার্টনি, জর্জ হ্যারিসন ও রিঙ্গো স্টার। ইতিমধ্যে বিভিন্ন ভাষায় লক্ষ লক্ষ শব্দ লেখা হয়ে গেলেও মনে হয়, যেন এখনও অনেক কথাই বাকি থেকে গেছে এঁদের নিয়ে বলার। বিটলসকে ঘিরে মানুষের মধ্যে গড়ে ওঠা প্রবলতর ম্যানিয়ার পাশাপাশি তাদের ক্যারিশমার যে ঠিকরানো আলো— তা এই কিংবদন্তি রক ব্যান্ডকে নিঃসন্দেহে বিশ্বের সবচেয়ে প্রভাবশালী ও শ্রেষ্ঠতমর স্থান দিয়েছে। গান নিয়ে পরীক্ষানিরীক্ষা, পপ ব্যালাড থেকে ভারতীয় সঙ্গীত, সাইকেলেডিয়া থেকে হার্ড রক— কোনওটাই অধরা থাকেনি ষাটের দশকের দুনিয়া–কাঁপানো এই দলটির সঙ্গীতশৈলীর কাছে। ব্রিটিশ ও আমেরিকান মিউজিকের ইতিহাসে এখনও পর্যন্ত সবচেয়ে বেশি বিক্রীতই শুধু নয়, ‌অস্ট্রেলিয়া–‌সুইডেন–‌ফ্রান্স–‌জার্মানি–‌ফিলিপিন্স থেকে একেবারে ভারত পর্যন্ত প্রভাবঢেউ তোলা উদ্দাম তারুণ্যের প্রতীক এই দলটির সাদামাঠা পথ চলার শুরু থেকে প্রতিটি বদল, ভাঙাগড়ার প্রতিটি পর্যায়কে নিপুণ সুতোয় গেঁথেছেন লেখিকা, তুলে এনেছেন সৃষ্টির আড়ালে লুকিয়ে থাকা যন্ত্রণাবিদ্ধ দিনলিপি। একাধিকবার আকাদেমি থেকে গ্র‌্যামি, হল অফ ফেম, আইভর নভেলো— বিশ্বের সেরা সব সম্মান ও পুরস্কারপ্রাপ্তির পাশাপাশি চরম মাদকাসক্তি, সঙ্ঘাত, মৃত্যু— নানা ঝড়ঝাপটায় বিধ্বস্ত হতে হতেও একের পর এক সুপারহিট গান ও অ্যালবামের জন্ম— গোটা জীবন জুড়ে হাজারো নাটকীয় বাঁক— সব কিছুই স্বল্প পরিসরে মুনশিয়ানায় মলাটবন্দী করেছেন লেখিকা। ■

জনপ্রিয়

Back To Top