কৌশিক মুখোপাধ্যায়: জ্বলদর্চি পত্রিকার অক্টোবর ২০১৮–র বিশেষ সংখ্যার বিষয় ‘দুষ্প্রাপ্য গ্রন্থ সমালোচনা’। এই বিশেষ সংখ্যার আমন্ত্রিত সম্পাদক সুধাংশুশেখর মুখোপাধ্যায়ের সম্পাদকীয়, ‘আত্মপক্ষ’–এ সুধাংশুবাবু লিখছেন, ‘‘‌‌আমাদের ইচ্ছে ছিল, ‘দুষ্প্রাপ্য গ্রন্থ’ সংগ্রহ করে তা সমালোচনা সংখ্যা করা।
অনেক আশা ছিল এই সংখ্যাটি আমাদের সারস্বত সাধনার সম্পদ হবে। কিন্তু আমাদের বিজ্ঞাপন আর অহংবোধ খানখান হয়ে গিয়েছে।”
এই সংখ্যার পৃষ্ঠাসংখ্যা ১৬১। অথচ দুষ্প্রাপ্য গ্রন্থ নিয়ে সমালোচনার পরিসর ৬৮ পৃষ্ঠা, সমালোচিত ‘দুষ্প্রাপ্য গ্রন্থ’ সংখ্যা ১০।
‘আত্মপক্ষ’–এ সুধাংশুবাবু নিজেই লিখছেন— ‘‌কোনো কোনো সমালোচক এমন সমালোচনা পাঠিয়েছেন যা পোস্টকার্ডের প্রথম পাতাই যথেষ্ট। বুঝতে অসুবিধে হয় না, তাঁরা আমাদের অনুরুদ্ধতায় সমালোচনা পাঠিয়েছেন। অতি ব্যস্তময় জীবন তাঁদের সংশ্লিষ্ট ভাবনার সময়টুকু কেড়ে নিয়েছে। কী আর করা যাবে!’‌
২০১২ এবং ২০১৩–তে দুটি খণ্ডে প্রকাশিত ‘‌জ্বলদর্চি’‌র বিশেষ সংখ্যার বিষয় ছিল ‘কেন লিখি’। সেখানে লেখক সংখ্যা ১৩৩। অর্থাৎ ‘আমি’ কেন লিখি জানাতে যতজন লেখক আগ্রহী ‘দুষ্প্রাপ্য গ্রন্থ’ সমালোচনায় লেখকদের মনে হয় তত আগ্রহ নেই।
২০১৮–তে দাঁড়িয়ে সেটাই স্বাভাবিক। ‘ফেসবুক কবি’, ‘‌ফেসবুক লেখক’ বইমেলায় সই দিয়ে, সেলফি তুলে ক্লান্ত হয়ে পড়েন। সে–কারণেই মানকুমারী বসু, রামতনু লাহিড়ী, কমলকুমার মজুমদার–এর দুষ্প্রাপ্য বই নিয়ে সমালোচনা করে সময় ‘নষ্ট’ না করার যাথার্থ্য আছে বইকী! তবু, এখনও যে–সমস্ত পাঠক এই পত্রিকা হাতে পেতে চাইবেন, লেখক/সমালোচকদের নিস্পৃহায় তাঁদের লাভই হয়েছে।
শম্ভুচন্দ্র বিদ্যারত্নের অত্যন্ত দুর্মূল্য এবং দুষ্প্রাপ্য ‘ভ্রমনিরাস’ (চণ্ডীচরণ বন্দ্যোপাধ্যায়–এর লেখা ‘বিদ্যাসাগর’ নামক [প্রথম প্রকাশ : জ্যৈষ্ঠ ১৩০২] জীবনচরিতের ভ্রমনিরাকরণ) গ্রন্থটি
পুনর্মুদ্রিত হয়েছে জ্বলদর্চি পত্রিকার এই বিশেষ সংখ্যায়, প্রথম সংস্করণের প্রচ্ছদের ছবি–সহ।
জ্বলদর্চির অন্যান্য সংখ্যার মতোই এই বিশেষ সংখ্যাটিরও সম্পাদনা, পরিকল্পনা, রূপায়ণ প্রশংসার দাবি রাখে। বিষয়ের সঙ্গে সাযুজ্য রেখে পুরোনো বইয়ের গন্ধমাখা সিপিয়া টোনের প্রচ্ছদ মনোগ্রাহী। উপরি পাওনা প্রখ্যাত শিল্পীদের বেশ কিছু ভাল ছবির যত্নশীল মুদ্রণ। প্রচ্ছদ এঁকেছেন দেবাশিস রায়।
পঁচিশ বছর ধরে এই ধরনের লিটল ম্যাগাজিন চালিয়ে যাওয়া সহজ কাজ নয়। সেই কঠিন লড়াই যখন এতদিন ধরে চালানো গেছে তখন এই একই বিষয় নিয়ে অদূর ভবিষ্যতে একটি বৃহত্তর সংখ্যা জ্বলদর্চি প্রকাশ করে উঠতে পারবে আশা করা যায়। ■ 

জনপ্রিয়

Back To Top