আজকাল ওয়েবডেস্ক:‌ কাবাবের শিক গালের ভিতর দিয়ে ফুঁড়ে সোজা ঢুকে গিয়েছিল মাথার খুলির ভিতর। তবুও আশ্চর্যজনকভাবে বেঁচে গেল ১০ বছরের জেভিয়ার কানিংহ্যাম। স্থানীয় সময় বুধবার সন্ধ্যায় চিকিৎসকরা জানিয়েছেন, দ্রুত সুস্থ হয়ে উঠছে ওই বালক। আমেরিকার মিসৌরির বাসিন্দা জেভিয়ার শনিবার বিকেলে বাড়ির বাগানে ট্রি–হাউজে উঠে খেলছিল। গাছের নিচে সে এবং তার বন্ধুরা পুঁতে রেখেছিল শিককাবাব বানানোর কয়েকটি লোহার শিক। হঠাৎই বোলতার কামড়ে টাল সামলাতে না পেরে গাছ থেকে মুখ থুবড়ে নিচে, পুঁতে রাখা শিকগুলির উপর পড়ে জেভিয়ার। তৎক্ষণাৎ একটি শিক তার গাল ফুঁড়ে করোটি ভেদ করে ঢুকে যায়। ওই অবস্থায় মায়ের কাছে ছুটে যায় জেভিয়ার। তার মা ছেলেকে দেখে প্রায় জ্ঞান হারিয়ে ফেলেন। জেভিয়ারকে প্রথমে স্থানীয় হাসপাতালে প্রাথমিক চিকিৎসার পর অন্য একটি হাসপাতাল এবং রবিবার কানসাসের বড় হাসপাতালে স্থানান্তরিত করা হয়। সেখানে ১০০ জন চিকিৎসক এবং নার্সের দল রবিবার অস্ত্রোপচার করেন। নিউরোসার্জন কোজি এবারসোল জানিয়েছেন, ওই শিকটি জেভিয়ারের গাল ভেদ করে প্রায় ১৫ সেন্টিমিটার ঢুকে গিয়েছিল খুলির ভিতর। কিন্তু অবিশ্বাস্যভাবে তার চোখ, শিরা, মগজ এবং শিরদাঁড়ার কোনও ক্ষতি হয়নি। এমনকি ঘাড়ের পিছনের চামড়াতেও কোনও আঁচড় লাগেনি শিকের। এধরনের ঘটনা দশ লক্ষে একবার ঘটে।
শিরায় আঘাত না লাগার ফলেই অতবড় দুর্ঘটনার পরও সেভাবে রক্তপাত হয়নি জেভিয়ারের, যার ফলে অস্ত্রোপচারে সেভাবে সমস্যা হয়নি বলেই মননে করছেন চিকিৎসকরা। শিকটি নিজে টেনে বের না করে মায়ের কাছে ছুটে যাওয়ায় জেভিয়ারের উপস্থিত বুদ্ধির তারিফ করেছেন এবারসোল।‌‌

জনপ্রিয়

Back To Top