আজকাল ওয়েবডেস্ক:‌ ফের যৌনকেচ্ছা। ফের ডোনাল্ড ট্রাম্প। মার্কিন প্রেসিডেন্ট আর বেলাগাম জীবনযাত্রায় জড়িয়ে বিতর্কের মুখে পড়া যেন সমার্থন শব্দ হয়ে গেছে। প্রাক্তন পর্নস্টার স্টর্মি ড্যানিয়েলসের সঙ্গে শারীরিক সম্পর্ক এবং সেই সম্পর্ক লুকোতে মোটা টাকার ঘুষ দেওয়ার অভিযোগ এখনও অন্তরালে যায়নি। তারই মধ্যে বোমা ফাটালেন কারেন ম্যাগডুগাল নামে এক প্রাক্তন প্লে–বয় মডেল। কারেনের দাবি, ২০০৬–০৭ সালে ট্রাম্পের সঙ্গে শারীরিক সম্পর্ক ছিল তাঁর।

একবার–দু’‌বার নয়, স্ত্রী মেলানিয়া গর্ভবতী থাকার সময় অজস্র রাত ট্রাম্প কাটিয়েছেন কারেনের সঙ্গে। পরিবর্তে নাকি  ট্রাম্প মোটা টাকা ‘‌পারিশ্রমিক’‌ হিসাবে দিতে চাইতেন কারেন–কে। ঘনিষ্ঠতা এমন পর্যায়ে পৌঁছয় যে বিভিন্ন পার্টিতে কারেনা–কে একজন ‘‌বিশেষ নারী’‌ হিসাবে পরিচয় করাতেন ট্রাম্প। ২০০৬ সালেই প্লে–বয়ের প্রয়াত কর্ণধার হিউ হফনারের একটি পার্টিতে আলাপ হয়েছিল ট্রাম্প ও কারেনের।

তারপরে দ্রুত কাছাকাছি আসা। দু’‌জনের ঘনিষ্ঠতা দেখে অনেকেই নাকি মনে করতেন, কারেন–ই নাকি হতে চলেছেন ট্রাম্পের পরবর্তী স্ত্রী।
কারেনের দাবি, সেই সময়ে বেভারলি হিল্‌সে ট্রাম্পের বিলাসবহুল বাংলোতে তাঁরা নিয়মিত মিলিত হতেন। নিজের দিনলিপি–তে কারেন লিখেছিলেন, ‘ট্রাম্প আমাকে অর্থ দিতে চেয়েছিল। সেকথা শুনে আমি তখন দুঃখ হয়েছিলাম। আমি বলেছিলাম, আমি সেই রকম মেয়ে নই। আমি অর্থের জন্য তোমার সঙ্গে শুইনি। আমি তোমাকে পছন্দ করেছি বলে তোমার সঙ্গে শুয়েছি।

তখন ট্রাম্পও বলেছিলেন, তুমি আমার জীবনে একজন অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ নারী।’‌ তবে কিছুদিনের মধ্যেই ট্রাম্প সম্পর্কে মোহভঙ্গ হয় কারেনের। তিনি বলেছেন, ‘‌ট্রাম্প এমন একজন মানুষ,যাঁর ভিতরে জাতিবিদ্বেষ ও বর্ণবিদ্বেষ কানায় কানায় ভরা। তাই ওর সঙ্গে কোনও সুস্থ মানুষই সম্পর্ক চালাতে পারবেন না। অশ্বেতাঙ্গদের সম্পর্কে এত ঘৃণা ওর মধ্যে ভরা যা দেখলে অবাক হতে হয়। তাই আমিও সরে আসি।’‌
কয়েকদিন আগে যখন প্রাক্তন পর্নস্টার স্টর্মি ড্যানিয়েল্‌সের সঙ্গে সম্পর্কের কথা জানাজানি হয়েছিল, রাগে ঘর ছেড়েছিলেন ট্রাম্প পত্নী মেলানিয়া। এবার তিনি কী করেন, সেটাই দেখার।

জনপ্রিয়
আজকাল ব্লগ

Back To Top