আজকাল ওয়েবডেস্ক:‌ ২০১২ সালের ১ ডিসেম্বর, দিল্লিতে ঘটে যাওয়া মর্মান্তিক ঘটনা নাড়া দিয়ে গিয়েছিল অভিষেক যাদবকে। সেদিন, চলন্ত বাসে এক প্যারামেডিক্যাল ছাত্রীকে একদল লোক নির্মমভাবে নির্যাতন করেছিল। দেশের বেশিরভাগ মানুষের মতো গোরক্ষপুরের বাসিন্দা অভিষেকও সেদিন এই দেশে নারীর সুরক্ষা না থাকা নিয়ে ক্ষোভ প্রকাশ করেছিলেন। কিন্তু সেখানেই থেমে থাকেননি তিনি। চেয়েছিলেন কিছু পরিবর্তন করার। মাল্টি-ডিসিপ্লিন মার্শাল আর্ট বিশেষজ্ঞ অভিষেক সিদ্ধান্ত নিয়েছিলেন, কীভাবে আক্রমণকারীদের থেকে নিজেকে রক্ষা করা যায়, সে সম্পর্কে প্রশিক্ষণ দেওয়ার জন্য তিনি বিনামূল্যে কাজ করবেন। সেই থেকে অভিষেক উত্তরপ্রদেশ জুড়ে আড়াই লাখেরও বেশি মেয়েকে বিনামূল্যে আত্মরক্ষার প্রশিক্ষণ দিয়েছেন। ‘‌অভি সেলফ প্রোটেকশন ট্রাস্ট’‌ নামে একটি এনজিও চালাচ্ছেন তাদের। সেই সংগঠেনর মধ্যে থেকেও ‘মেরি রক্ষা, মেরে হাতো মে’ পরিকল্পনার আওতায় মেয়েদের প্রশিক্ষণ দেন তিনি। তিনি জানিয়েছেন, অংশগ্রহণকারীরা বেশিরভাগই গ্রামাঞ্চলের বাসিন্দা। এই শিবিরগুলিতে প্রায়শই কয়েক শতাধিক মেয়ে অংশ নেন। ২০১৬ সালে এই শিবিরে অংশগ্রহণকারীদের সংখ্যা ছিল প্রায় ৫,‌৭০০। যা তাঁর নাম তুলেছিল লিমকা বুক অফ রেকর্ডে। তিনি জানিয়েছেন, ‘‌আমাদের লক্ষ্য মহিলাদের ক্ষমতায়ন করা। যাতে যেকোনও চ্যালেঞ্জ তাঁরা মোকাবিলা করতে পারেন, তাঁর জন্য আরও শক্তিশালী করা। 

জনপ্রিয়

Back To Top