আজকাল ওয়েবডেস্ক:‌ স্ট্রোক হওয়ায় প্রায় মৃত্যুর মুখে পৌঁছে গিয়েছিলেন জম্মু–কাশ্মীরের রাজৌরি জেলার পঞ্জগ্রৈন গ্রামের বাসিন্দা, ওয়াজির হুসেন নামে এক বৃদ্ধ। কিন্তু লকডাউন ঘোষণা হয়ে যাওয়ায় এমনিতেই কড়া নিরাপত্তায় মোড়া জম্মু–কাশ্মীরে বৃদ্ধকে হাসপাতালে পৌঁছনোর ব্যবস্থা করা যায়নি। ফোনে সেখবর শুনে অসুস্থ বাবাকে দেখতে মুম্বইয়ে কর্মরত তাঁর ছেলে মহম্মদ আরিফ সাইকেলেই রাজৌরির উদ্দেশ্যে রওনা দেন। মুম্বই থেকে যেখানকার দূরত্ব ২২০০ কিলোমিটার। কারণ লকডাউনের জন্য গণ পরিবহন বন্ধ থাকায় মুম্বইয়ে নিরাপত্তারক্ষী হিসেবে কর্মরত আরিফ আর কোনও উপায় পাননি। সোশ্যাল মিডিয়ায় আরিফের ওই সফরের খবর জানতে পেরেই সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দেয় সিআরপিএফ। তারা বিবৃতি দিয়ে জানিয়েছে, ‘‌এক তারিখ বাবার অসুস্থতার খবর পান আরিফ। কিন্তু কোনও গম পরিবহন না থাকায় পরদিন সাইকেলেই রাজৌরির উদ্দেশ্যে রওনা দেন। এরপরই সিআরপিএফ মদতগার তাঁর সঙ্গে যোগাযোগ করে এবং পঞ্জগ্রৈন থেকে ১৫ কিলোমিটার দূরে অবস্থিত সিআরপিএফ–এর ৭২ নম্বর ব্যাটেলিয়নের ছাউনি থেকে একটি দল আরিফের বাড়ি পৌঁছয়। তারপর ‌মদতগার টেলিমেডিসিন বা টেলমি–তে সিআরপিএফ–এর চিকিৎসক প্যানেলের সঙ্গে রোগীর শারীরিক অবস্থা নিয়ে আলোচনা করেন সিআরপিএফ জওয়ানরা।’‌ চিকিৎসকরা ওয়াজিরকে হাসপাতালে ভর্তি করতে পরামর্শ দিলে রবিবার হেলিকপ্টারে করে তাঁকে প্রথমে রাজৌরি জেলা হাসপাতালে নিয়ে যায় সিআরপিএফ–এর ৭২ নম্বর ব্যাটেলিয়ন। তারপর জম্মুর হাসপাতালে স্থানান্তরিত করা হয়েছে ওয়াজিরকে। সিআরপিএফ আরও জানিয়েছে, তাদের এক জওয়ান ওই গ্রামেরই বাসিন্দা হওয়ায় তিনিই আরিফের সঙ্গে যোগাযোগ রাখছেন। পুলিশের সঙ্গেও কথা বলেছে সিআরপিএফ এবং পুলিশের সাহায্যেই সোমবার আহমেদাবাদ পর্যন্ত পৌঁছিয়েছেন আরিফ।
ছবি:‌ এএনআই    

জনপ্রিয়

Back To Top