Viral: ‘‌বাদাম বাদাম দাদা কাঁচা বাদাম’‌ গানে ভাইরাল বিক্রেতা ভুবন বাদ্যকর, দেখুন ভিডিও

সুরজিৎ ঘোষ হাজরা: বিখ্যাত পরিচালক তরুণ মজুমদারের চলচ্চিত্র ‘‌শ্রীমান পৃথ্বীরাজ’‌-‌এর জনপ্রিয় একটি গান ছিল ‘‌হরিদাসের বুলবুল ভাজা, টাটকা তাজা খেতে মজা...’‌।

সেই বুলবুল ভাজা এতই জনপ্রিয় ছিল যা নাকি ইংল্যান্ডের রাণীর বড় পছন্দের ছিল। নিজেদের সামগ্রী বিক্রি করতে নিয়ে গ্রামের পথে গাওয়া গান, আজ সোশ্যাল মিডিয়ার দৌলতে ভাইরাল। এখন সময় বদলেছে। তবে এই সব বিক্রেতা-‌শিল্পীর কদর কমেনি। অচেনা গ্রামের অপরিচিত ব্যক্তি জনপ্রিয় হয়ে উঠলেন সব সীমানা ছাড়িয়ে। যেমন বীরভূমের ভুবন বাদ্যকর। দুবরাজপুর ব্লকের অন্তর্গত লক্ষ্মীনারায়ণপুর পঞ্চায়েতের প্রত্যন্ত গ্রাম কুড়ালজুড়ির গ্রামের বাসিন্দা তিনি। পাশেই ঝাড়খণ্ড। পেটের টানে কাঁচা বাদামের বস্তা পিছনে চাপিয়ে ঘুরে বেড়ান এই গ্রাম থেকে সেই গ্রামে। সেটা বাংলা হোক বা ঝাড়খণ্ড। আগে সাইকেলে করে ঘুরলেও এখন পুরনো একটা মোটর সাইকেল কিনে তাতে চেপেই বিক্রি করতে বের হন তিনি। গ্রামের পথে কাঁচা বাদাম বিক্রি করতে গিয়েই গান বেঁধেছেন তিনি। ‘‌বাদাম বাদাম দাদা কাঁচা বাদাম, আমার কাছে নাই গো বাবু, ভাজা বাদাম...’‌ এই গানটি সোশ্যাল মিডিয়ায় এখন ভাইরাল।

 

এই গানের টানেই ছুটে আসছেন গ্রামের মানুষ। কিনছেন বাদাম। কেউ কেউ গান ধরে রাখছেন মুঠোফোনে। তেমনই এক ‘অজানা’ উৎসাহী মানুষের মুঠোফোন থেকেই ভুবন জুড়ে ভাইরাল হয়ে যান ভুবনবাবু। এখন ফেসবুক, ইউটিউব, টিকটিক, মজ ইত্যাদি খুললেই বেজে উঠছে তাঁর এই গান। ইতিমধ্যেই লক্ষ লক্ষ মানুষ দেখে ফেলেছেন সেই গান। কয়েক মিলিয়ন ভিউও হয়েছে! ভুবনবাবু জানান, ‘‌আমি প্রতিদিন নানা গ্রামে ঘুরে গান করতে করতে বাদাম বিক্রি করি। বিগত ১০ বছর ধরে বাদাম বিক্রি করছি। আমি বাদাম বিক্রি করতে গিয়ে এই গান করি। সেই সময় কোনও একটি ছেলে সেই গান ক্যামেরা করে সোশ্যাল মিডিয়ায় ছেড়ে দিয়েছে, কিন্তু আমি সেই ছেলেটিকে চিনি না।’‌ 

বাদাম বিক্রি করে প্রতিদিন ২০০-২৫০ টাকা উপার্জন হয় হয় ভুবনবাবুর। ত্রিপল দেওয়া তাঁর মাটির বাড়িতে রয়েছেন স্ত্রী, দুই ছেলে ও এক কন্যা।
 বাদামওয়ালা ভুবনবাবুর এই গানের সুরের টানে ছুটে আসেন অনেকে। শুধু গান শোনা নয়, গানের পাশাপাশি তাঁর কাছে ক্রেতারা বাদামও কেনেন। শুধু টাকা দিয়ে নয়, পুরনো সিটি গোল্ডের চেন, চুড়ি, হাতের বালা, মোবাইল ভাঙা, হাঁসের পালক, মাথার চুল ইত্যাদির বিনিময়েও বাদাম কেনা যায় তাঁর কাছ থেকে।

আরও পড়ুন:‌ হাওড়ার হোমে শিশুদের যৌন নিগ্রহ কাণ্ডে গ্রেপ্তার প্রাক্তন ডেপুটি মেয়রের ছেলে

সোশ্যাল মিডিয়ার দৌলতে রাতারাতি সেলিব্রিটি হয়ে যাওয়া ভুবন বাবু বলেন, ‘‌শুনে খুব ভাল লাগছে যে আমার গাওয়া গান সারা বিশ্বে বহু মানুষ দেখে ফেলেছেন। সুযোগ পেলে তাহলে আরও কিছু ভালো গান শোনাব, যদিও আমি কোনওদিন গান শিখিনি।’‌ স্থানীয় বাসিন্দা ওয়াহিদ রাজা খান বলেন, ‘‌পুরো বিশ্বে ভুবন বাদ্যকরের গান ছড়িয়ে যাচ্ছে। মিলিয়ন মিলিয়ন মানুষ ইন্টারনেটে তাঁর গান শুনছেন। এমনকী বাংলাদেশের টিকটিক স্টাররা তাঁর গান লিপ সিঙ্কিং করে ভাইরাল করছেন। এতে আমরা খুবই গর্বিত।’‌ অপর এক বাসিন্দা মিঠু খান জানান, ‘‌ভুবন বাদ্যকর একজন বাদাম বিক্রেতা। তিনি বাদাম বিক্রি করতে যাওয়ার সময় একটি গান নিজে লিখেছেন এবং নিজেই সুর দিয়েছেন। আমাদের খুব ভাল লাগছে যে আমাদের ছোট্ট গ্রামে এমন এক প্রতিভা লুকিয়ে রয়েছেন।’‌

আকর্ষণীয় খবর