আজকাল ওয়েবডেস্ক:‌ বারবার যুদ্ধের হুঙ্কার দিয়েছে পাকিস্তান। সীমান্তে দু’‌হাজার পাক সেনা মোতায়েন করা হয়েছে দু’‌দিন আগে থেকেই। শুক্রবার ফের যুদ্ধের হুঙ্কার শোনা যায় পাক সেনাপ্রধান জেনারেল ওমর জাভেদ বাজওয়ার গলায়। কিন্তু সেটাকে আমল না দিলে পরিস্থিতি ভয়াবহ হতে পারে। কারণ ইতিমধ্যেই সীমান্তের ধারে জড়ো করা হয়েছে বিপুল পরিমাণ আগ্নেয়াস্ত্র এবং বিস্ফোরক। 
তাহলে কী ভারত–পাকিস্তান যুদ্ধ আসন্ন?‌ পরিস্থিতি পর্যালোচনা করে দেখা যাচ্ছে, পাক সেনার সঙ্গে এবার সেখানে মোতায়েন করা হচ্ছে জঙ্গিদেরও। যারা ভারতের সীমানা লঙ্ঘন করে হামলা চালাবে। আর পেছন থেকে তাদের সাহায্য করবে পাক সেনারা। ৩৭০ ধারা বিলোপ করে দেওয়ার পর থেকেই আগ্রাসী হয়ে পড়েছে পাকিস্তান। নানা কারণে বিরোধিতা করতে শুরু করেছে তারা। কিন্তু খালি হাতে বারবার ফিরতে হওয়ায় এবার আক্রমণাত্মক হয়ে পড়েছে ওয়াঘা সীমান্তের ওপারের দেশ। 
সূত্রের খবর, পুলওয়ামার ধাঁচে হামলা করার ছক কষেছে পাকিস্তান। তাই এত বড় তোড়জোড়। ইতিমধ্যেই তিনটি ডাম্পার মোতায়েন করা হয়েছে সীমান্তে। ‌সেখানে মজুত করা রয়েছে বিপুল পরিমাণ আগ্রেয়াস্ত্র এবং বিস্ফোরক। এগুলো তুলে দেওয়া হবে জঙ্গিদের হাতে। যারা সীমান্ত পেরিয়ে হামলা চালাবে। আর পেছনে থাকবে পাক সেনা। সেপ্টেম্বরের ১–২ তারিখ থেকে এই মজুত করার কাজ চলছে। পাক অধিকৃত কাশ্মীরের রাওলাকোট রাখ চক্রী সেক্টরে এই বিপুল পরিমাণ বিস্ফোরক মজুত করা হয়েছে। এই এলাকায় রয়েছে পাকিস্তানি সেনার ১০ নম্বর বালোচ রেজিমেন্ট। উত্তর কাশ্মীর দিয়ে এই হামলা চালানোর পরিকল্পনা করা হয়েছে। ৬০ জন জঙ্গিকে সীমান্ত পেরিয়ে হামলা চালানোর জন্য নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। ১০ হাজার জঙ্গিকে নিয়োগ করা হচ্ছে এই অপারেশনের জন্য। পাক গুপ্তচর সংস্থা আইএসআই এই ছক কষেছে। ‌‌

জনপ্রিয়

Back To Top