আজকাল ওয়েবডেস্ক:‌ এবার জঙ্গিদের সরাসরি সাহায্য করতে মাঠে নামল পাক গুপ্তচর সংস্থা আইএসআই। এতদিন চোরাগোপ্তা যে কাজটা করত, সেটাই এবার সামনে থেকে করতে উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে বলে খবর। জঙ্গিদের নিরাপদ আশ্রয় দিতে নিয়ন্ত্রণরেখা বরাবর অত্যাধুনিক ক্যামেরা এবং সিগন্যাল টাওয়ার বসাতে চলেছে। এই প্রযুক্তি ওপারের ছবি সামনে নিয়ে আসবে। ফলে সুযোগ বুঝে সেখানে আইইডি বিস্ফোরণ করার পরিকল্পনা নেওয়া হয়েছে বলে ভারতের গোয়েন্দারা জানতে পেরেছেন। তাই জারি হয়েছে সতর্কতা। 
ভারত যাতে পাল্টা হামলা করলে তা প্রতিরোধ করা যায় তাই এই ব্যবস্থা বলে খবর। গোয়েন্দা দপ্তর সূত্রে খবর, জঙ্গি লঞ্চপ্যাডগুলিকে সুরক্ষিত রাখতে এই অত্যাধুনিক ব্যবস্থা করা হচ্ছে। কারণ তা না হলে সার্জিক্যাল স্ট্রাইকের মতো ঘটনা ঘটতে পারে। ইতিমধ্যেই ১৮টি সিগন্যাল টাওয়ার বসানো হচ্ছে। পাক সেনা আর পাক গুপ্তচর সংস্থার আধিকারিকরা গত ৮ জানুয়ারি পাক অধিকৃত কাশ্মীরের ব্রিগেডিয়ার অসীম খানের নেতৃত্বে কোটলিতে বৈঠকে বসে ছিলেন। সেখানেই এই পরিকল্পনাকে সিলমোহর দেওয়া হয়। আগামী ২৬ জানুয়ারি প্রজাতন্ত্র দিবসে নিয়ন্ত্রণরেখা পেরিয়ে আইইডি বিস্ফোরণ ঘটানোর ছক কষেছে পাকিস্তান। 
এই গোটা বিষয়টির ওপর নজর রাখতে বলা হয়েছে। গোয়েন্দারা সতর্ক করে বলেছেন, পাকিস্তানের বর্ডার অ্যাকশন টিমকে এই কাজে লাগানো হয়েছে। আর স্পেশাল সার্ভিস গ্রুপকে সাজিয়ে তোলা হয়েছে প্রশিক্ষিত কমান্ডোদের দিয়ে। তারা পেছন থেকে সাহায্য করবে জঙ্গিদের। ইতিমধ্যেই কৃষ্ণা ঘাঁটি সেক্টরে বিস্ফোরণ ঘটানোর পরিকল্পনা ছকে ফেলেছে তারা। 

জনপ্রিয়

Back To Top