আজকাল ওয়েবডেস্ক:‌ তারা রামের পূজারী। রামভক্ত হনুমানও তাদের প্রিয় দেবতা। তাই ঘটা করে প্রায় প্রতিবছরই দেশজুড়ে হনুমান জয়ন্তী পালন করছে বিজেপি। কিন্তু রামভক্তদের জ্বালায় কর্নাটকের শিবমোগ্গা জেলার বাসিন্দাদের প্রাণ ওষ্ঠাগত। জনরোষ বাড়লে যে হিতে বিপরীত হতে পারে সেজ্ঞান আছে তাদের। তাই শিবমোগ্গায় বাঁদরদের অত্যচার মোকাবিলায় শুধু বাঁদরদের জন্যই ১০০ একরের একটা পার্ক তৈরি করছে কর্নাটকের বিজেপি সরকার।
সূত্রের খবর, শিবমোগ্গায় বাঁদর এবং বন্য মহিষের সংখ্যা অত্যধিক বেড়ে গিয়েছে। খাবারের সন্ধানে প্রায়শই লোকালয়ে ঢুকে পড়ছে তারা। সামনে পড়ে গেলে মানুষদের উপর হামলা করছে। মাঠের ফসলও খেয়ে ফেলছে তারা। বন্য পশুদের অত্যাচারে নাজেহাল মানুষের ক্ষোভ যে তাদের পক্ষে প্রতিকূল হতে পারে সেই ইঙ্গিত পেয়ে পদক্ষেপে উদ্যোগী হয়েছে ইয়েদিউরাপ্পা সরকার।
মঙ্গলবার মুখ্যসচিব, বন দপ্তরের অফিসার, জেলার বিধায়ক এবং কৃষক সংগঠনের প্রতিনিধিদের সঙ্গে দীর্ঘ বৈঠক করেন মুখ্যমন্ত্রী বি এস ইয়েদিউরাপ্পা। বুধবার তীর্থহাল্লির বিধায়ক আরাগা জ্ঞানেন্দ্র বলেন, রাজ্য সরকারকে জেলায় বন্য প্রাণীদের দাপট নিয়ে তাঁরা বিস্তারিত জানিয়েছেন। মহিষদের রুখতে সৌর কাঁটাতারের বেড়া এবং বাঁদরদের জন্য পার্ক তৈরির দাবি জানান তাঁরা। মুখ্যমন্ত্রী তাতে রাজি হয়েছেন বলে জানালেন জ্ঞানেন্দ্র। সূত্রের খবর, ইয়েদিউরাপ্পা নির্দেশ দেন জেলার হোসানাগারা তালুকের নাগোড়িতে ১০০ একর জমির উপর শুধুই বাঁদরদের জন্য একটা পার্ক তৈরি হবে। শিবমোগ্গার ডেপুটি কমিশনারকে এজন্য জমি দেখতে বলেছেন তিনি। এছাড়া বনকর্মীদের তিনি নির্দেশ দিয়েছেন, বনের ভিতর ফলের গাছ লাগাতে, যাতে খাবারের সন্ধানে লোকালয়ে না ঢুকে পড়ে বাঁদররা। ইয়েদিউরাপ্পা বলেছেন, শিবমোগ্গায় এই সিদ্ধানত ফলপ্রসূ হলে রাজ্যের অন্যত্রও তা চালু করা হবে। জ্ঞানেন্দ্র জানালেন, হিমাচল এবং অসমে এধরনের বাঁদরদের পার্ক রয়েছে, এবং তা সফল। সেই পরিকল্পনার বাস্তবায়ন দেখতে দুই রাজ্যে যাবে কর্নাটক সরকারের প্রতিনিধি দল।    ‌‌

জনপ্রিয়

Back To Top