গৌতম চক্রবর্তী, বারুইপুর: প্রেমিকাকে‌ বিয়ের প্রতিশ্রুতি দিয়ে সহবাসের অভিযোগ উঠেছিল আগেই প্রেমিকের বিরুদ্ধে। এবার প্রেমিকার পরিবার পণের টাকা দিতে না পারায় প্রেমিক অন্যত্র বিয়ে করেছে বলে অভিযোগ উঠল। ঘটনার বিচার চেয়ে ওই প্রেমিকা পুলিসের দ্বারস্থ হয়েছেন। যদিও তাঁর অভিযোগ, বিষয়টাতে গুরুত্ব দিতে চাইছে না পুলিস। বারুইপুরের সীতাকুণ্ডু এলাকার ঘটনা। 
এখানেই বাড়ি বছর ২১ বয়সি ওই যুবতীর। তাঁর বাবা দিনমজুর। খুবই অভাবের সংসার। তার মাঝেই ৩ বছর আগে এলাকারই এক যুবক আরিফ লস্করের সঙ্গে ওই যুবতীর প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে। আরিফ তাঁকে সংসার করার স্বপ্ন দেখায়। যুবতীর অভিযোগ, তাঁকে বিয়ে করার প্রতিশ্রুতি দেয় আরিফ। আর সেই প্রতিশ্রুতি দিয়েই কয়েকবার সহবাসও করেছে প্রেমিক বলে তাঁর অভিযোগ। কয়েকমাস হল প্রেমিকা নিজে এবং তার পরিবারের লোকজন আরিফকে বিয়ের করার জন্য চাপ দিচ্ছিল। আর তাতেই বেঁকে বসে ওই প্রেমিক। বিয়ে করার শর্ত হিসেবে প্রেমিকার পরিবারের কাছে ১ লক্ষ টাকা পণের দাবি করে ওই প্রেমিক বলে অভিযোগ। এত টাকা তারা কোথায় পাবে তা ভেবে পায় না ওই পরিবার। তবুও পিছিয়ে না গিয়ে, ওই যুবতীর পরিবার আরিফকে ৫০ হাজার টাকা জোগাড় করে দেবেন বলে কথা দেয়। কিন্তু তাতেও চিঁড়ে ভেজেনি। প্রেমিকার পরিবারের কথায় রাজি হয়নি আরিফ বলে অভিযোগ। এরপরই অন্যত্র বিয়ের সম্বন্ধ দেখতে থাকে ওই প্রেমিক। বাধ্য হয়ে প্রতিবেশী এক মহিলাকে ঘটনাটি খুলে বলে ওই প্রেমিকা। তিনি যুবতীকে নিয়ে বারুইপুর থানায় আরিফের বিরুদ্ধে বিয়ের প্রতিশ্রুতি দিয়ে সহবাসের অভিযোগ জানান। কিন্তু তাতে কোনও ফল হয়নি।

জনপ্রিয়
আজকাল ব্লগ

Back To Top